‘বেশি করে পর্যটক পাঠান’, ভারত বয়কট করতেই মাথায় হাত! এবার চীনের পায়ে পড়ল মালদ্বীপ

বাংলাহান্ট ডেস্ক : অপমান প্রধানমন্ত্রী ও ভারতীয় সংস্কৃতিকে। আর তার জেরেই বয়কটের মুখে পড়েছে ছোট দ্বীপ রাষ্ট্র মলদ্বীপ। ‘বয়কট মলদ্বীপ’ হ্যাসট্যাগে এখন মুখরিত সমাজ মাধ্যম। আর এই বয়কটের ধাক্কা সামলাতে এবার চীনের শরণাপন্ন হল মলদ্বীপ। হাজার হাজার ভারতীয় পর্যটক মলদ্বীপের বিমান টিকিট ও হোটেল বুকিং বাতিল করছেন।

   

যত সময় যাচ্ছে ততই বাড়ছে বাতিলের সংখ্যা। এই আবহে মলদ্বীপের প্রেসিডেন্ট মহম্মদ মুইজ্জু বেজিং সফরে গিয়ে চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সরকারের কাছে পর্যটক পাঠানোর জন্য রীতিমত অনুনয় বিনয় করলেন। ফুজিয়ান প্রদেশের মলদ্বীপ বিজনেস ফোরামে মঙ্গলবার বক্তৃতা দিয়েছেন মুইজ্জু।

আরোও পড়ুন : ‘এটা আমি হতে দেবনা…’, রাম মন্দির ইস্যুতে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

চীনা বণিক সভার উদ্দেশ্যে এদিন মলদ্বীপের প্রেসিডেন্ট বলেন, “চীন আমাদের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য সহকারী ছিল প্রাক অতিমারি পর্বে। আবার আমরা ফিরে যেতে চাই সেই অবস্থায়।” এদিনের বক্তৃতায় মলদ্বীপের প্রেসিডেন্ট চীনা পর্যটকদের আরো বেশি করে সে দেশে যাওয়ার আমন্ত্রণ জানান।

আরোও পড়ুন : বাংলায় আরেকটি লাইন শুরু করার পথে রেল! থমকে থাকা কাজের জন্য প্রশাসনের কাছে চাওয়া হল জমি

তিনি জানান, পাঁচ কোটি ডলারের একটি বাণিজ্য চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে চীনের সাথে মলদ্বীপে বিশেষ পর্যটন অঞ্চল গড়ে তোলার জন্য। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিয়ে মলদ্বীপের ৩ মন্ত্রীর কুমন্তব্যের জেরে এখনো পর্যন্ত ৪ হাজার বিমান টিকিট ও ১৪ হাজার হোটেল বুকিং বাতিল করেছেন ভারতীয় পর্যটকরা।

1704816821 xi

বিশেষজ্ঞদের ধারণা এর ফলে জোর ধাক্কা খাবে মলদ্বীপের পর্যটন ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্র। মলদ্বীপের বর্তমানে প্রধান আয়ের উৎসই হল পর্যটন ক্ষেত্র। তাই ওয়াকিবহালমহল ধারণা করছে, এই পরিস্থিতিতে ভারতীয় পর্যটকেরা যদি সে দেশে যাওয়া বন্ধ করে দেন, জোর ধাক্কা খাবে সে দেশের পর্যটন ক্ষেত্র। সেক্ষেত্রে সংকটের মুখে পড়তে পারে সে দেশের অর্থনীতি।