শো ক্যান্সেল, জটিল রোগ বাসা বেঁধেছে শরীরে! অসুস্থতা নিয়ে মুখ খুললেন খোদ নচিকেতা

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক : ‘পাগলা হাওয়া’ থেকে শুরু করে ‘তুমি আসবে বলে’, বাংলা গানের জগতে নচিকেতার (Nachiketa Chakraborty) অবদান অনস্বীকার্য। বিগত ৩০ বছর ধরে একটার পর একটা হিট গান উপহার দিয়েছেন বাঙালিকে। তাকে বলা হয় বাংলার জীবনমুখী গায়ক। নচিকেতা চক্রবর্তীর অ্যালবামে রয়েছে অগুনতি সুপারহিট গান। আর সেই গায়ককে নিয়েই সামনে এল এক চাঞ্চল্যকর তথ্য।

নিজেকে নিয়ে গর্ব করা সবার দ্বারা হয়না। তবে সেটা নচিকেতা করতে পারেন। তিনি নিজেই বলেন, নচিকেতা তৈরি করা যায় না, নচিকেতা জন্মায়। গায়কের দাবি, আগামী ৫০ বছরেও কোনও নচিকেতার জন্ম হবেনা। আর এহেন অভিনেতাই নাকি এখন চরম অসুস্থ। গায়কের সেই অসুস্থতা নিয়ে শুরু হয়েছে নানান ধরণের জল্পনা। মাস খানেক আগে একটা অনুষ্ঠানও বাতিল করেছেন তিনি।

সোশ্যাল মিডিয়ার খবর, নচিকেতা নাকি ক্যান্সারে আক্রান্ত। খবর সামনে আসতেই উদ্বেগ ছড়িয়েছে ভক্তদের মনে। অনুরাগীরা তো রীতিমতো উদ্বিগ্ন। যে নচিকেতার গান শুনে মানুষ বড় হয়েছে, সেই নচিকেতা নাকি মারণ রোগ ক্যান্সারে আক্রান্ত। মিডিয়া তো এটাও বলছে, এই ক্যান্সার নাকি নচিকেতার গলায় প্রভাব ফেলছে।

আরও পড়ুন : এ যেন সাক্ষাৎ সরস্বতী! বাবুউউর মায়ের গলায় গান শুনলে আপনিও মুগ্ধ হবেন

বিষয়টা চাউর হতেই নচিকেতার সাথে যোগাযোগ করে বাংলার বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম। প্রশ্ন শুনে রীতিমত অবাক হয়ে তিনি বলেন, “দাপিয়ে শো করে বেড়াচ্ছি। আর এর মধ্যে কারা নাকি রটাচ্ছে আমার নাকি ক্যান্সার হয়েছে। কোনও কিছু হয়নি আমার। বলে বলে অসুস্থ করে দেবেন না।” এমনিতে নচিকেতা বেশ ঠোঁটকাটা, তার গানের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরণের সামাজিক সমস্যা তুলে ধরেন দর্শকদের সামনে।

আরও পড়ুন : বিশ্বভ্রমণ করলেও কেন জন্মভূমি কাশ্মীরে পা রাখেননা শাহরুখ খান! কারণটা জানলে চোখে জল আসবেই

about bg

তিনি এমন একজন ব্যক্তিত্ব যিনি জোর গলায় বলতে পারেন, ”মন্ত্রীরা সব আস্ত বদের ধারী”। যদিও শাসকদলে নাম লেখানোর পর থেকে নচিকেতার প্রতিবাদি সুর খানিকটা দমে গেছে। যে কারণে অনেকেই তাকে ধান্দাবাজ বলেও কটাক্ষ করে থাকেন। তবে নচিকেতা এসবে খুব একটা কান দেখাননা। তিনি সগর্বে বলেন, “আমাকে ডি গ্ল্যামারাইজ কতগুলো পাঁঠা করতে পারবে না। আমি বাংলা ভাষার উপর যে দাগটা রেখে গিয়েছি আমার সম্পর্কে দু-পাঁচটা বাজে কথা বলে তারা আমাকে ম্লান করতে পারবে না।”

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর