‘কেকে-র ঘটনার পর কথা বলতে ভয় পাই’, ছারখার রূপঙ্করের জীবন! মুখ খুললেন গায়ক

বাংলা হান্ট ডেস্ক : অভিশপ্ত ৩১শে মে আমাদের জীবন থেকে কেড়ে নিয়েছে কেকে-কে (KK)! প্রায় এক বছরেরও বেশি সময় হয়ে গেল এই কিংবদন্তি তারকা আর আমাদের মধ্যে নেই। প্রিয় গায়কের মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছিল গোটা দেশ, অন্যদিকে রোষের মুখে পড়েছিলেন জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত গায়ক রূপঙ্কর বাগচী (Rupankar Bagchi)। আর এতদিন সেই বিষয়েই মুখ খুললেন গায়ক।

এইদিন ইন্টারভিউ প্রসঙ্গে রূপঙ্কর বলেন, এখন নাকি ডিজিটাল মিডিয়ার কথা শুনলেই তার আতঙ্ক শুরু হয়ে যায়। এমনকি সামনে তার যে অনুষ্ঠান রয়েছে সেটা নিয়েও নাকি চরম টেনশনে রয়েছেন তিনি। এমনই রূপঙ্করের তো এটাও মনে হয় যে, আজকের দিনে সমস্ত শিল্পীদেরই একটা ব্যাকাপ প্ল্যান রাখা উচিত। যেমন তিনি নাকি তেলে ভাজার দোকান দেওয়ার প্ল্যান করেছেন।

   

রূপঙ্করের কথায়, এখন যদি প্রতিযোগীতায় টিকে থাকতে হয় তবে তাকে অবশ্যই মাল্টিটাস্কার হতে হবে। কথাপ্রসঙ্গে উঠে আসে গত বছরের টালমাটাল অবস্থার কথাও। তিনি বলেন, এক বছর আগের ঝড় এখনও রয়েছে। এবং গত বছরের ঘটনায় যে ঝড় তৈরি হয়েছে তার ক্ষত আজও রয়ে গেছে। এবং এই ক্ষত হয়ত সারাজীবন রয়ে যাবে।

আরও পড়ুন : বর হিসেবে কেমন সাগ্নিক? দিদি নাম্বার ওয়ানে রচনার সামনে বড় সিক্রেট ফাঁস করলেন অভিনেতার স্ত্রী

পাশাপাশি রূপঙ্করকে এইদিন এটাও জিজ্ঞেস করা হয় যে, তার কি কখনও আত্মহত্যার কথা মনে হয়েছে? জবাবে গায়ক বলেন, ‘না আমার সেটা কখনোই মনে হয়নি। কারণ আমার জীবনে সব সময় পাঁচটা পিলার রয়েছে। আমি যতই প্রেমের গান গাই, আমি দিনের শেষে বাড়ি যেতে পছন্দ করি। এবং বাড়ি গিয়ে যাই করি না কেন তাতেই আমার আনন্দ।’ পাশাপাশি স্ত্রী চৈতালীর প্রশংসাতেও পঞ্চমুখ হয়ে ওঠেন গায়ক।

আরও পড়ুন : ‘৫১ বছর বয়সেও নায়িকা….’, ঋতুপর্ণার বিকিনি পরা ছবিতে এ কী বলে ফেললেন শ্রাবন্তী!

তিনি বলেন, এতদিন পরেও তাদের মধ্যে প্রচুর গল্প জমে আছে। কথাচ্ছলে উঠে আসে মেয়ে মহুলের কথাও। তিনি জানান, ঐ সময়টায় তার মেয়ের উপর কী ঝড় বয়ে গেছে। এছাড়া রূমপ ইসলাম, নচিকেতা, সিধুর মত প্রমুখ সহকর্মীদের কথাও বলেন তিনি। রূপঙ্করের কথায়, ‘এদের ছাড়া বাকিদের সকলের থেকে অসহযোগিতাই পেয়েছে।’

rupankar bagchi on kk controversy 1280x720.jpg

গোটা ঘটনা নিয়ে প্রতিবাদ করতে ইচ্ছে করেনা? এই প্রসঙ্গে রূপঙ্কর বলেন, ‘আমি এত অশান্তি, স্ট্রেস, চাপ নিয়ে লড়াই করতে পারবোনা। আমি আমার মেয়েকে নিয়ে ভয় পাই। আমার স্ত্রীকে নিয়ে ভয় পাই। আমি বুঝেছি আমি অতি সাধারণ মধ্যবিত্ত একটা লোক। প্রতিবাদ করার ইচ্ছে এখনও আছে। তবে আমি এখন কোন কথাই বলতে চাইনা। আমি কিছু বলতে খুব ভয় পাই‌। কেউ হয়ত মারা গেছেন যে আমার খুব প্রিয় ছিলেন। তাকে নিয়ে কথা বলতেও আমি ভয় পাই।’ তবে তিনি জানান, আগামী ১৬ সেপ্টেম্বরের প্রোগ্রামে আমি অনেক কিছু বলব।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর