এতদিন পর্যন্তই ঠিক থাকে মোবাইল, তারপরেই ফিনিশ! জানেন কী আপনার স্মার্টফোনের এক্সপায়ারি ডেট?

বাংলাহান্ট ডেস্ক : প্রত্যেকটি জিনিসেরই একটি নির্দিষ্ট মেয়াদ থাকে। সেই মেয়াদ উত্তীর্ণ হলে জিনিসগুলি আর ব্যবহার করার যোগ্য থাকে না। মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়া অর্থাৎ এক্সপায়ারি ডেট ক্রস করা মানেই সেটির আয়ু শেষ। আপনারা অনেকেই হয়ত অনেকেই জানেন না, আমাদের স্মার্টফোনটিরও থাকে এক্সপায়ারি ডেট।

   

আমাদের স্মার্টফোনের এক্সপায়ারি ডেট বা মেয়াদ কতদিন সেই সম্পর্কে কীভাবে জানবেন জেনে নিন।বর্তমান সময়ে দাঁড়িয়ে স্মার্টফোন ছাড়া এক মুহূর্ত চলা অসম্ভব। যত সময় গেছে ততই বিবর্তন হয়েছে মোবাইল ফোনের। বিজ্ঞানের আশীর্বাদে সবার হাতেই এখন স্মার্টফোন। এই অবস্থায় আপনার হাতের স্মার্টফোনটি কতদিন পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে সেই সম্পর্কে আপনার ধারণা থাকা উচিত।

আরোও পড়ুন : দেননি প্রথম স্ত্রীকে ডিভোর্স, ১৯৯৭ সালেই দোলনকে সিঁদুর পরান দীপঙ্কর! শেষমেশ ফাঁস আসল কাহিনী

ফোন করা তো বটেই, ইনস্ট্যান্ট মেসেজ পাঠানো থেকে শুরু করে খাবার-গাড়ি বুক করা বা অনলাইন শপিং, সবকিছুই সম্ভব হচ্ছে আমাদের হাতের এই স্মার্টফোনের মাধ্যমে। অন্যান্য ডিভাইসের মতো স্মার্টফোনের ব্যাটারীতেও ব্যবহার করা হয় রাসায়নিক। নির্দিষ্ট সময় পর সেটি শেষ হয়ে যায়। বর্তমানে অধিকাংশ স্মার্টফোনে থাকে ফিক্সড ব্যাটারি।

Samsung's new series of smartphones will be made in India

এই ফোনগুলির ব্যাটারি নষ্ট হয়ে গেলে সেগুলি বদলানো যায় না। ব্যাটারি নষ্ট হয়ে গেলে ফেলে দিতে হয় ফোন। সেই অর্থে স্মার্টফোনের নির্দিষ্ট কোনো এক্সপায়ারি ডেট নেই। ব্যাটারি অন্যান্য যন্ত্রাংশ যতদিন ভালো থাকবে স্মার্টফোন ততদিন পরিষেবা দেবে। যদি ব্যাটারি রিপ্লেস করা যায়, তাহলে স্মার্টফোনের পুরনো ব্যাটারির আয়ু শেষ হয়ে যাওয়ার পর ভালোভাবে চলবে।