শীঘ্রই শুরু হবে নিয়োগ, প্রাথমিকে চাকরি নিয়ে বড় আপডেট SSC-র, যা জানালেন সিদ্ধার্থ মজুমদার..

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ সেই ২০২২ থেকে শিক্ষক দুর্নীতি নিয়ে তোলপাড় রাজ্যে। ন্যায্য চাকরির দাবিতে দীর্ঘদিন রাস্তায় বসে রয়েছেন চাকরিপ্রার্থীরা। ওদিকে আদালতে চলছে একের পর এক মামলা। তবে এরই মাঝে উচ্চ প্রাথমিকের (Upper Primary Recruitment) পরীক্ষার্থীদের জন্য কিছুটা আশার খবর শোনালো রাজ্য।

   

প্রসঙ্গত কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে চূড়ান্ত মেধাতালিকা আগেই প্রকাশ করেছে স্কুল সার্ভিস কমিশন (School Service Commission)। দীর্ঘ ৯ বছর ধরে আটকে নিয়োগ। কমিশন সূত্রে খবর আদালত থেকে নিয়োগের সবুজ সংকেত মিললেই শুরু হবে তোড়জোড়। মনে করা হচ্ছে পুজোর পরপরও ২০২৩ সালে এর সুরাহা হতে পারে।

পুজোর পরই উচ্চ প্রাথমিকে নিয়োগ হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, সেই ২০১৪ সালের পর থেকে থেকে উচ্চ প্রাথমিকে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ রূপে বন্ধ। যদিও বর্তমানে শুন্যপদের সংখ্যা ১৪ হাজারেরও বেশি। তবুও কোনও না কোনও কারণে আটকে রয়েছে নিয়োগ। দীর্ঘ ৯ বছর ধরে নিয়োগ না হওয়ায় ক্ষোভে ফুসছে চাকরিপ্রার্থীরা। অবিলম্বে নিয়োগ হোক, এই দাবিতেই সরব সকলে। নিয়োগের দাবিতে, পথে আন্দোলন করছেন চাকরিপ্রার্থীরা।

আরও পড়ুন: ৮০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ করতে চলেছে রাজ্য সরকার! কাদের খুলছে কপাল?

কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী স্কুল সার্ভিস কমিশন যে মেধাতালিকা প্রকাশ করেছে সেখানে ১৩,৩৩৯ জনের নাম রয়েছে। নিয়োগের প্রসঙ্গে কমিশনের চেয়ারম্যান সিদ্ধার্থ মজুমদার জানান, ‘উচ্চ প্রাথমিকে নিয়োগ ও চাকরিপ্রার্থীদের চাকরি পাওয়া এখন সময়ের অপেক্ষা মাত্র। তবে মামলাকারীদের পক্ষ থেকে কিছু ল’ পয়েন্ট জমা পড়েছে। আগামী শুনানিতে আমরা এর উত্তর দেব। আমরা আশাবাদী সেই শুনানিতেই কাউন্সেলিংয়ের অনুমতি পাব।’

Tet certificate will valid for whole life SSC Change the rule

তিনি আরও জানান, আদালতের অনুমতি পেলেই আমরা কাউন্সেলিংয়ের তারিখ জানিয়ে দেব। একবার অনুমতি মিললে খুব বেশি হলে তিন সপ্তাহ মত লাগবে নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করতে। তারপরই চাকরিপ্রার্থীরা নিয়োগপত্র হাতে পেয়ে যাবেন।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর