লোকসভার আগেই রেলমন্ত্রীর কাছে ‘বড়’ দাবি সুকান্তর! মুখে হাসি ফুটবে বাংলার মানুষের?

   

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বছর ঘুরলেই লোকসভা ভোট (Loksabha Vote)। তার আগে কিছুমাস থেকেই রেলমন্ত্রকের কাছে নানা দাবিদাওয়া নিয়ে হাজির হচ্ছেন বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদ তথা বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার (BJP MP Sukanta Majumdar)। বুধবারও, ফের আরও কিছু প্রস্তাব রেলমন্ত্রী (Railway Minister) অশ্বিনী বৈষ্ণবের কাছে দেন সুকান্ত।

বালুরঘাট থেকে দক্ষিণ ভারতের যশবন্তপুর ও বালুরঘাট থেকে শিয়ালদহ পর্যন্ত নতুন ট্রেন চালু করার দাবি নিয়ে রেলমন্ত্রীর অশ্বিনী বৈষ্ণবের কাছে দরবার করলেন বালুরঘাটের সাংসদ। জানা গিয়েছে রেল যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতির লক্ষ্যে একাধিক দাবি জানিয়েছেন তিনি।

এদিন রেল মন্ত্রীর কাছে নিজের এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে একাধিক দাবি জানিয়েছেন নেতা। বুনিয়াদপুর কালিয়াগঞ্জ রেল প্রকল্প এবং গাজল গুঞ্জরপুর ভায়া ইটাহারের ঘোষিত রেললাইন সম্প্রসারণের জন্য নতুন করে দাবি জানানো হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। পাশাপাশি দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়নের জন্য একাধিক দাবি রেখেছেন সাংসদ।

বালুরঘাট, গঙ্গারামপুর ও বুনিয়াদপুরকে অমৃতভারত স্টেশন এবং রেলের জমিতে একটি স্টেডিয়াম বানানোর প্রস্তাবও কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কাছে রেখেছেন বালুরঘাটের গেরুয়া সাংসদ। রাজ্যের অন্যান্য নানা জায়গার মতো দক্ষিণ দিনাজপুরের বহু মানুষই চিকিৎসার জন্য প্রতি বছর দক্ষিণ ভারতে যান। তাই নিজের জেলার মানুষদের চিকিৎসার সুবিধার জন্য বালুরঘাট থেকে কাটপাটি (ভেলোর) পর্যন্ত একটি নতুন ট্রেন চালু করার আর্জি জানানো হয়েছে রাজ্য সভাপতি তরফে।

এর পেছনে আরেকটি কারণ হল সীমান্তবর্তী হিলি থেকে প্রচুর প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশের বহু মানুষ বালুরঘাট হয়ে দক্ষিণ ভারতের দিকে যায়। তাই বালুরঘাট থেকে সরাসরি দক্ষিণ ভারত পর্যন্ত একটি নতুন ট্রেন আনার প্রস্তাব রাখা হয়েছে।

sukanta rail minister

এ প্রসঙ্গে বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার বলেন, “জেলার উন্নয়ন নিয়ে রেলমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। বালুরঘাট থেকে দক্ষিণ ভারতের ট্রেন, বন্ধ হয়ে যাওয়া রেল প্রকল্প সহ নানা বিষয়ে আলোচনা করেছি। রেলমন্ত্রীও আশ্বাস দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, রেল উন্নয়নের জন্য সহযোগিতায় এগিয়ে আসবেন।”

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর