টাইমলাইনটাকা পয়সাভারত

টাটার মুকুটে নয়া পালক, সরকারির পর এবার এই বিশ্ববিখ্যাত বেসরকারি কোম্পানি করছে নিজেদের নামে

বাংলা হান্ট ডেস্ক: আমাদের দেশের অন্যতম গাড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থা হল টাটা মোটরস (Tata Motors)। এমতাবস্থায়, এই সংস্থা এবার দেশীয় বাজারে বৈদ্যুতিক গাড়ির সেগমেন্টে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। শুধু তাই নয়, ইতিমধ্যেই বৈদ্যুতিক গাড়ির উৎপাদনের গতি বাড়াতে টাটা মোটরস গুজরাটের সানন্দে ফোর্ড ইন্ডিয়ার প্ল্যান্টটি কিনেছে। জানা গিয়েছে যে, কোম্পানি প্ল্যান্টটি অধিগ্রহণের জন্য তার অংশীদার টাটা প্যাসেঞ্জার ইলেকট্রিক মোবিলিটি লিমিটেড (Tata Passenger Electric Mobility Limited, TPEML) এবং ফোর্ড ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড (Ford India Private Limited FIPL)-এর সাথে একটি ইউনিট স্থানান্তর চুক্তি (UTA) স্বাক্ষরিত করেছে।

প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, টাটা মোটরস লিমিটেড গত রবিবার ফোর্ড ইন্ডিয়ার এই প্ল্যান্টটি ৯১.৫ মিলিয়ন ডলারের (ভারতীয় মুদ্রায় যা প্রায় ৭২৬ কোটি টাকা) বিনিময়ে কেনার জন্য একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। Tata Motors-এর Tata Passenger Electric Mobility Limited (TPEML) এবং Ford India Private Limited (FIPL)-এর মধ্যে সম্পন্ন হওয়া এই চুক্তিটি জমি, সম্পত্তি এবং সমস্ত যোগ্য কর্মচারীকে কভার করবে।

কি রয়েছে কোম্পানির ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা: এই প্রসঙ্গে TPEML-এর পক্ষ থেকে এই অধিগ্রহণের ঘোষণার মাধ্যমে সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর শৈলেশ চন্দ্র বলেন, “ফোর্ড ইন্ডিয়ার সাথে স্বাক্ষরিত এই চুক্তিটি সমস্ত স্টেকহোল্ডারদের জন্য উপকারী, যা টাটা মোটরসের দৃঢ় অভিপ্রায়কে প্রতিফলিত করে। সেইসাথে কোম্পানি যাত্রীবাহী যানবাহনকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবে। ভেহিক্যাল ইউনিট এবং বৈদ্যুতিক যানবাহন ইউনিটগুলিতে উৎপাদন অব্যাহত রেখে বাজারের পরিস্থিতিতে দখলকে শক্তিশালী করতে হবে। আত্মনির্ভর ভারতের ভবিষ্যত গড়ার দিকে এটি একটি প্রগতিশীল পদক্ষেপ এবং দেশের অটো শিল্পের বৃদ্ধিকেও এটি ত্বরান্বিত করবে।”

উৎপাদন ক্ষমতা বৃদ্ধি: টাটার মতে, সানন্দের এই প্ল্যান্টে বার্ষিক ৩ লক্ষ ইউনিট উৎপাদন ক্ষমতা রয়েছে। যা বাড়িয়ে প্রতি বছরে ৪ লক্ষ ২০ হাজার ইউনিটে উন্নীত করা যেতে পারে।

বিশাল হতে চলেছে এই প্ল্যান্ট: প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত বছরেই ফোর্ড দেশে উৎপাদন বন্ধ করে দিয়েছিল। পাশাপাশি সেই সময় দেশের যাত্রীবাহী গাড়ির বাজারে ওই কোম্পানিটির শেয়ার ছিল মাত্র ২ শতাংশেরও কম। মূলত, দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে, কোম্পানিটি দেশের বাজারে তার জায়গা তৈরি করার চেষ্টা করেছিল। এমতাবস্থায়, ফোর্ড ইন্ডিয়ার এই ভেহিকল অ্যাসেম্বলি প্ল্যান্টটি ৩৫০ একর জমির উপর নির্মিত। এছাড়াও, এর ইঞ্জিন ম্যানুফ্যাকচারিং প্ল্যান্টটি ১১০ একর জুড়ে বিস্তৃত রয়েছে।

জানা গিয়েছে, টাটার এই অধিগ্রহণের পেছনের মূল পরিকল্পনা হল কর্মসংস্থান বাড়ানো। কারণ এটি প্রত্যক্ষভাবে ৩,০৪৩ জনকে এবং পরোক্ষভাবে ২০ হাজার জনের কর্মসংস্থান প্রদান করবে। এদিকে, টাটা মোটরসের চেয়ারম্যান এন চন্দ্রশেখরন শেয়ারহোল্ডারদের উদ্দেশ্যে জানিয়েছেন যে, কোম্পানিটি তার ক্ষমতা বাড়াচ্ছে এবং সানন্দে ফোর্ড কারখানার অধিগ্রহণ উচ্চ চাহিদা মেটাতে উল্লেখযোগ্য “ক্ষমতা সংযোজন” করবে। পাশাপাশি, তিনি আরও বলেন “যাত্রী যানবাহনের বাজারের শেয়ার বেড়েছে। আমরা আপাতত ১৪ শতাংশে রয়েছি। তবে, ভবিষ্যতে আমাদের আরও উচ্চ লক্ষ্য রয়েছে।”

Related Articles