টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গবিধানসভা নির্বাচনরাজনীতি

‘আত্মরক্ষার্থে গুলি চালাতে বাধ্য হয় কেন্দ্রীয় বাহিনী’, ছবি প্রকাশ করে দাবি শুভেন্দুর

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ চতুর্থ দফা নির্বাচনে শীতলকুচির (shitalkuchi) ঘটনা নিয়ে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে সেখানকার ৪ জনের মারা যাওয়ার ঘটনায়, চাপানউতোর চলছে রাজনৈতিক মহলে। এরই মাঝে বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari) এক ট্যুইট করে জানালেন, ‘আত্মরক্ষার্থে গুলি চালাতে বাধ্য হয় কেন্দ্রীয় বাহিনী’।

শনিবার চতুর্থ দফার নির্বাচনের দিনে কোচবিহারের শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথে সকাল দশটা নাগাদ শয়ে শয়ে গ্রামবাসী একত্রিত হয়ে কেন্দ্রীয় বাহিনীর উপর আক্রমণ করার অভিযোগ ওঠে। কেন্দ্রীয় বাহিনীর হাত থেকে অস্ত্র ছিনিয়ে নেওয়ারও প্রচেষ্টা করে তাঁরা। এরপর আত্মরক্ষার খাতিরে কেন্দ্রীয় বাহিনী ১৫ রাউন্ড গুলি চালায়। তারপরই কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে প্রাণ হারায় ৪ গ্রামবাসী।

এই ঘটনা নিয়ে সরগরম হয়ে রয়েছে বাংলার রাজনীতি। কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে ৪ জন প্রাণ হারানোর ঘটনায় বিরোধীরা তোপ দেগেছে কেন্দ্র সরকারের দিকে। চলছে রাজনৈতিক তর্জা। এরই মধ্যে আবার গত রবিবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি কোচবিহার যেতে চাইলে, নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেক নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়- আগামী ৭২ ঘণ্টা মমতা ব্যানার্জি সহ অন্য কোন রাজনৈতিক দলের নেতৃত্বরা, কেউই সেখানে যেতে পারবেন না।

এই ঘটনার পর গতকাল নন্দীগ্রামের বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী এক ট্যুইট করে একটি ছবি শেয়ার করেন। সেখানে তিনি লেখেন, ‘চতুর্থ দফার ভোটের দিন কোচবিহারের শীতলকুচি-তে সিআইএসএফ জওয়ানদের উপর হামলা চালায় তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। বন্দুক ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হয়। গুরুতর জখম হন এক জওয়ান। তাই আত্মরক্ষার্থে গুলি চালাতে বাধ্য হয় কেন্দ্রীয় বাহিনী’।

Back to top button