টাইমলাইনআন্তর্জাতিক

করোনা যুদ্ধঃ WHO দিল আনন্দ সংবাদ, ৮ টি টিমের পরিশ্রমের ফলে শীঘ্রই আসছে করোনা ভ্যাকসিন

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ খুশির খবর নিয়ে এল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)। শীঘ্রই বাজারে আসতে চলেছে করোনা ভাইরাসের (COVID-19) মোকাবিলায় সঠিক ভ্যাকসিন। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছিলেন, প্রায় ১২ থেকে ১৮ সাম সময় লাগতে পারে এই মারণ ভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কাররে ক্ষেত্রে। কিন্তু তাঁর অনেক আগেই দ্রুততার সাথে পরিশ্রম করে এই রোগের প্রতিকারক বানাতে সক্ষম হয়েছেন গবেষকরা।

খুব শীঘ্রই আসছে করোনা ভ্যাকসিন
WHO- এর মহাপরিচালক টেড্রস অ্যাধনম সোমবার জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কাউন্সিলকে জানিয়েছেন, করোন ভাইরাস সংক্রমণের ভ্যাকসিন তৈরির কাজ জোরকদমে চলছে। এবং ধারণা করা হচ্ছে এই ভ্যাকসিন আনুমানিক সময়ের আগে প্রস্তুত করা সম্ভব হবে।

৭ থেকে ৮ টি টিম অনবরত কাজ করে চলেছে
চীনের করোনা ভাইরাস সমগ্র বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ার সময় থেকেই এই ভাইরাসের প্রতিষেধক আবিষ্কারের লক্ষ্যে ছিল বিশ্বের তাবড় তাবড় গবেষকরা। WHO-প্রধান জানিয়েছেন, প্রায় ১০০ টি দল এই ওষুধ আবিস্কারের কাজে নিয়জিত ছিল। তবে তাঁর মধ্যে মোট ৭ থেকে ৮ টি টিম রয়েছে যারা, দিনরাত পরিশ্রম করে এই ভ্যাকসিন তৈরির খুব কাছাকাছি রয়েছেন, যা বিশ্বের কাছে একটি আনন্দ সংবাদ নিয়ে আসতে চলেছে।

বিশ্বের প্রতিটি দেশেরই একটি করে শক্তিশালী চিকিৎসকের দল থাকা প্রয়োজন
সমগ্র বিশ্ব জুড়ে প্রায় ৪০০ বিজ্ঞানীর একটি দল এই পুরো কাজটি পর্যবেক্ষণ করছে। কিন্তু কোনভাবেই কেউই সাফল্য লাভ করতে পারছিল না। বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিভিন্ন ওষুধ আবিষ্কারের পর তা মানুষকে সাময়িকভাবে সুস্থতা দিলেও, সঠিক প্রতিষেধক এখনও আবিষ্কার করা সম্ভব হয়নি। এই ভাইরাসের থেকে শিক্ষা গ্রহণ করা যায়, প্রতিটি দেশেরই একটি করে শক্তিশালী চিকিৎসক টিমের খুবই প্রয়োজন।

প্রয়োজন এখন শুধু অর্থের
এই কাজের জন্য এখনও অবধি WHO ৮ বিলিয়ন অর্থ সংগ্রহ করতে পেরেছে। কিন্তু এইটুকু অর্থ যথেষ্ট নয়। করোনা ভ্যাকসিন বিশ্বের জন্য প্রস্তুত করতে চাই আরও বিশাল পরিমাণ অর্থ। ট্রেডস জানিয়েছেন, পূর্বে ৪০ টি দেশের কাছে অর্থ সাহায্যের আবেদন করেছেন। কিন্তু পরবর্তীতে বাকি দেশগুলোকেও এগিয়ে আসতে হবে।

Back to top button