স্ত্রীকে নিয়ে ছাত্রীকে বিয়ের প্রস্তাব শিক্ষকের, অপমানে চরম সিদ্ধান্ত নিল পড়ুয়া! চাঞ্চল্য মালদায়

   

বাংলাহান্ট ডেস্ক : দশম শ্রেণীর এক ছাত্রী আত্মঘাতী (Suicide) হওয়ার ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মালদায় (Malda)। এই ঘটনায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ উঠছে ওই স্কুল ছাত্রীর এক গৃহ শিক্ষকের বিরুদ্ধে। পরিবারের অভিযোগ শিক্ষকের প্ররোচনাতেই এই ছাত্রী আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে মালদার হাবিবপুর ব্লকের কেন্দপুকুর এলাকায়। মৃত ছাত্রীর পরিবারের সদস্যরা গুরুতর অভিযোগ করেছেন গৃহ শিক্ষকের বিরুদ্ধে।

জানা গিয়েছে, মৃত ছাত্রীকে এক গৃহ শিক্ষক বাড়িতে পড়াতে আসতেন। এই শিক্ষক একাধিকবার ছাত্রীটিকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিল। এর ফলে ওই স্কুল ছাত্রী মানসিক অবসাদগ্রস্থ হয়ে পড়ে। পরিবারের পক্ষ থেকে চিকিৎসা করালে সাময়িকভাবে সুস্থ হয়ে ওঠে সে। ছাত্রীর আত্মীয়দের অভিযোগ, এরপরেও ওই শিক্ষক ক্রমাগত ছাত্রীকে প্রেম ও বিয়ের প্রস্তাব দিতে থাকে। এমনকি তাকে উত্যক্ত করতে থাকে ফোন ও whatsapp করেও।

স্থানীয় সূত্রের খবর, ওই শিক্ষক বিবাহিত হওয়া সত্বেও ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দিত। মৃত ছাত্রীর মামা জানিয়েছেন, “ঐ শিক্ষক তার স্ত্রীকে সাথে নিয়ে এসে আমার ভাগ্নিকে বিয়ে করার প্রস্তাব দেয়। এই অপমান আমার ভাগ্নি সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে।” এই ঘটনার পর গ্রামবাসী ও ছাত্রীর আত্মীয়রা শিক্ষকের বাড়িতে হামলা চালায় বলে অভিযোগ।

mi2p3td8 death

এই ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয় রবিবার রাতে। যদিও হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা সম্পূর্ণভাবে অস্বীকার করেছেন ছাত্রীর পরিবারের সদস্যরা। অন্যদিকে অভিযুক্ত শিক্ষক সব দোষ অস্বীকার করেছেন। পুলিশ ছাত্রীর মৃতদেহ সোমবার উদ্ধার করে মালদা মেডিকেল কলেজে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। এরপর ছাত্রীর পরিবারের তরফ থেকে গৃহ শিক্ষকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জানানো হয় হাবিবপুর থানায়। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ গ্রেফতার করেছে গৃহ শিক্ষককে।

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর