আইসিইউ’তে অক্সিজেন মাস্ক খুলে বিড়িতে ‘সুখটান’ দিতেই বিপত্তি, পুড়ল রোগীর মুখ

বাংলা হান্ট ডেস্ক : আবহাওয়া পরিবর্তনের (Weather Change) জন্য সিওপিডি (COPD) সমস্যার রোগীদের শ্বাসযন্ত্রে বিভিন্ন ধরণের সংক্রমণ বাড়তে দেখা যায়। এইসময় বিশেষ করে এই রোগীদের চিকিৎসকেরা সাবধানে থাকতে বলেন। আর ধূমপানের নেশা সিওপিডি রোগকে আরও বাড়িয়ে তোলে। এইকারণে চিকিৎসকেরা ধূমপান না করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

   

সম্প্রতি গুজরাটের এক বেসরকারি হাসপাতালে ধূমপানের কারণে ঘটলো এক মর্মান্তিক ঘটনা। এই হাসপাতালে এক ব্যক্তি শ্বাসকষ্টের জন্য ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট-এ ভর্তি ছিলেন। চিকিৎসকের মানা করা সত্ত্বেও এই ব্যক্তি বিড়ির (Beedi) নেশা ছাড়েননি। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে তিনি ধূমপান করছিলেন। আর তাতেই ঘটে গেলো হাসপাতালের আইসিউ-তে এক দুর্ঘটনা।

ব্যক্তিটি জানতেন যে হাসপাতালে ধূমপান করা উচিত নয়। তাও তিনি নিজেকে সামলাতে না পেরে, হাসপাতাল কর্মীদের থেকে চোখ এড়িয়ে বিড়িতে (Beedi) টান দিচ্ছিলেন। তাকে কিন্তু ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী অক্সিজেন মাস্ক পরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তিনি সেটিকে সরিয়ে ফেলেন এবং ধূমপান করতে থাকেন। যারফলে আগুনের ফুলকি অক্সিজেনের সংস্পর্শে আসা মাত্রই আগুন ধরে যায়।

মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, রোগীর মুখের কাছাকাছি অক্সিজেন মাস্ক থাকায় ধূমপানের কারণে তৎক্ষণাৎ আগুন লেগে যায়। যারফলে রোগীর মুখের এক অংশ পুড়ে যায়। এছাড়াও হাসপাতালের যন্ত্রাংশেও আগুন ধরে যায়। সাথে সাথেই হাসপাতাল কর্মীরা আগুন নিরাপত্তা ব্যবস্থার মাধ্যমে কিছুক্ষনের মধ্যেই আগুন নিভিয়ে ফেলেন।

ঘটনাটি দুর্ভাগ্যজনক হলেও হাসপাতাল কর্মী এবং রোগীদের জন্য এটি একটি মর্মান্তিক ঘটনা। যেহেতু আইসিইউ-র মধ্যে বেশি কর্মীরা আসা যাওয়া করেন না তাই প্রথমেই কারও নজরে আসেনি বিষয়টি। পুলিশ সূত্রে খবর, আইসিউতে পোড়া দেশলাই এবং দেশলাইয়ের বাক্স পাওয়া গেছে।