এক্কেবারে জঘন্য! মুখে তোলা যাবে না বাংলার এই স্টেশনের খাবার, বড়সড় পর্দাফাঁস রেলের

বাংলাহান্ট ডেস্ক : আমরা প্রতিদিনই দেশের লক্ষ লক্ষ মানুষ বিভিন্ন কারণে ট্রেনে চড়ে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গা সফর করে থাকি।সেই জন্যে দরকার পরে খাবারের কিন্তু সেই খাবার যদি খিদে না মেটানোর বদলে শরীরে বিষ ঢোকায় তাহলে সেই আতঙ্ক থেকে নিজেদের কি করে সামলানো যাবে,যাদের ওপর বিশ্বাস করে আমরা খাবার কিনি তাদের ওপর বিশ্বাসটা আসবে কোথা থেকে।

   

আজকাল রেলে যাত্রা করার সময় আমরা বিভিন্ন খাবার জিনিস কিনে থাকি কিন্তু সম্প্রতি দেখা গেছে সেখানেও ভেজাল অসাস্থকর খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে। কিছুদিন আগেই রেল স্টশনের প্ল্যাটফর্ম থেকে খাবার কিনে কিছুলোক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন খবর পেয়ে ভিজিলেন্স থেকে সেই খাবারের নমুনা পরীক্ষার ফল দেখে চক্ষু চড়কগাছ বিক্রেতারা খাবারের নামে বিষ প্রদান করেছে,সেই খাবার খাওয়ার পরে সবাই অসুস্থ হয়ে পড়ছে।

আরোও পড়ুন : ভাবতে হবে না বিনিয়োগের কথা! ঘরে বসেই আসবে কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা, শুরু করুন এই ব্যবসাটি

এমনও জানা যাচ্ছে হকারদের খাবার বিক্রি করার জন্যে যেই অনুমতি লাগে সেখানেও গাফিলতির অভিযোগ,ইন্ডিয়ান রেলওয়ের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যাদের কাছে এই অনুমতি নেই তাদের প্রতি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।বিশেষ আধিকারিক এবং উচ্চ পদস্থ আধিকারিকরা এই বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন এবং সেই ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

img 20240226 183618

একবার ভেবে দেখেছেন আমরা আপনারা যারা রেল সফরের মাঝে বিভিন্ন খাবার কিনছি টাকার বিনিময় নাকি বিষ?আপনি,আমি,আমরা তাহলে খাবার নয় বিষ কিনে খাচ্ছি।আমাদের সাথেই শিশুরাও খাচ্ছে সেই খাবার আমরাই তাদের হাতে তুলে দিচ্ছি। তাহলে ভেবে দেখুনতো একবার আমরা তাদের খিদে মেটানোর জন্যে খাবার কিনছি নাকি তাদের অসুস্থতা তাদের কি করুন অবস্থা হচ্ছে এর জবাব বা এই অন্যায় কে আটকাবে কাদের ওপর আমরা বিশ্বাস রাখবো।

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর