চরম ভোগান্তি! শিয়ালদহ লাইনের এই ট্রেন থেকে তুলে দেওয়া হল প্রথম শ্রেণির কামরা, বিজ্ঞপ্তি জারি রেলের

বাংলা হান্ট ডেস্ক: বর্তমান সময়ে প্রতিটি গণপরিবহণেই বৃদ্ধি পাচ্ছে যাত্রী সংখ্যা। এদিকে, যাত্রী পরিবহণের ক্ষেত্রে রেলপথ হল (Indian Railways) একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। এমনকি, পরিষেবার দিক থেকে রেলপথের গুরুত্ব এতটাই যে সেটিকে দেশের “লাইফলাইন”-ও বলা হয়ে থাকে। তবে, ট্রেনে চেপে সুষ্ঠুভাবে সফরের ক্ষেত্রে যাত্রীদের রেলের তরফে প্রকাশিত কিছু বিজ্ঞপ্তির দিকেও নজর রাখতে হয়। আর তা না হলেই থাকে দুর্ভোগের আশঙ্কা।

এমতাবস্থায়, এবার ঠিক সেইরকমই আর গুরুত্বপূর্ণ বিজ্ঞপ্তি সামনে আনল পূর্ব রেলওয়ে। শুধু তাই নয়, আপনিও যদি শিয়ালদহ-লালগোলা লাইনের একজন যাত্রী হন সেক্ষেত্রে এই প্রতিবেদনটি আপনার জন্য নিঃসন্দেহে গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, রেলের তরফে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে লালগোলা-শিয়ালদহ-লালগোলা প্যাসেঞ্জারে প্রথম শ্রেণির কামরার বিষয়ে জরুরি তথ্য উপস্থাপিত করা হয়েছে।

   

This train of Sealdah line will not have first class coach

মূলত, ওই বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, অনিবার্য কারণবশত ৫৩১৮১ শিয়ালদহ-লালগোলা প্যাসেঞ্জারে এবং ৫৩১৭২ লালগোলা-শিয়ালদহ প্যাসেঞ্জারে প্রথম শ্রেণির কামরা অবিলম্বে বন্ধ করা হচ্ছে। এমতাবস্থায়, যে সমস্ত যাত্রী ওই প্রথম শ্রেণির কামরায় আসল সংরক্ষণ করেছিলেন তাঁদেরকে কি করতে হবে সেই বিষয়টিও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: বন্ধ ট্রেন, রামপুরহাট টু কলকাতা যেতেই হিমশিম খাচ্ছে আমজনতা! দেখে নিন বিকল্প পথ আর খরচ

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে যে, যাঁরা প্রথম শ্রেণির কামরায় টিকিট কাটার মাধ্যমে আসন সংরক্ষণ করেছিলেন তাঁরা কোনো পিআরএস কাউন্টার থেকে অথবা অনলাইনের মাধ্যমে কিংবা আইভিআরএসের (টেলিফোন নম্বর ১৩৯) মাধ্যমে তাঁদের নির্দিষ্ট টিকিট বাতিল করে সম্পূর্ণ অর্থ ফেরত পেয়ে যাবেন।

আরও পড়ুন: Indian Railways: মাত্র দুই অক্ষর, ভারতের সবথেকে ছোট নামের রেল স্টেশন হল এটি! রয়েছে প্রতিবেশী রাজ্যে

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, যাঁরা অনলাইনের মাধ্যমে টিকিট বাতিল করবেন তাঁদেরকে www. irctc.co.in-এই ওয়েবসাইটে যেতে হবে। পাশাপাশি আরও জানা গিয়েছে যে, ইন্টারনেট থেকে ই-টিকিটও ফেরত দেওয়া হবে যাত্রীদের। এমতাবস্থায়,লালগোলা-শিয়ালদহ-লালগোলা প্যাসেঞ্জারে প্রথম শ্রেণির কামরা বন্ধ করার বিষয়ে সৃষ্ট অসুবিধার জন্য যাত্রীদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছে রেল। তবে, ঠিক কোন কারণে এহেন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে সেই বিষয়ে কোনো নির্দিষ্ট তথ্য পাওয়া যায়নি।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর