টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

১০০ দিনের প্রকল্পের তো নাম পাল্টাই নি, তাহলে টাকা আটকে কেন! কেন্দ্রকে প্রশ্ন তৃণমূলের

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ একদিকে যেমন প্রধানমন্ত্রী সড়ক যোজনা থেকে শুরু করে আবাস যোজনা গুলিতে নাম বদলের কারণে টাকা আটকে রাখা হয়েছে, আবার ১০০ দিনের প্রকল্পেও ন্যায্য অর্থ পাঠানো হচ্ছে না বাংলাতে; বর্তমানে এই সকল অভিযোগেই কেন্দ্র সরকারকে বিদ্ধ করে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস (Trinamool Congress)। দলীয় সূত্রে খবর, সম্প্রতি দিল্লি গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর (Narendra Modi) সঙ্গে বৈঠক করে এ সকল বিষয়ে জোর দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। পাশাপাশি অতীতে একাধিক অনুরোধও করেন মুখ্যমন্ত্রী। এত প্রচেষ্টা সত্ত্বেও মিলছে না টাকা। এমনকি ১০০ দিনের প্রকল্পে নাম পরিবর্তন না করা সত্ত্বেও কেন পাওনা দেওয়া হচ্ছে না, সেই বিষয়ে এদিন কেন্দ্রের বিরুদ্ধে প্রশ্ন ছুড়লো তৃণমূল।

এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে একের পর এক প্রশ্ন ছুড়ে দেন তৃণমূল কংগ্রেস মুখপাত্র সুখেন্দু শেখর রায় এবং চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। উল্লেখ্য, বিজেপির তরফ থেকে প্রকল্পের খাতে কেন্দ্রকে সঠিক হিসেব না দেওয়ার জন্যই পাওনা আটকে রয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়। তবে এ সকল দাবি মানতে নারাজ তৃণমূল। এদিন চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য জানান, “বাংলায় ১০০ দিনের কাজ অতি দ্রুত গতিতে হয়ে চলেছে। কাজের ভিত্তিতে আমরা গোটা দেশের মধ্যে দ্বিতীয় স্থান দখল করেছি। তা সত্ত্বেও জানুয়ারি মাস থেকে এই প্রকল্পের অর্থ আটকে রাখা হয়েছে। গত বছর ১০০ দিনের প্রকল্পে ৪০০ কোটি টাকা হ্রাস করে কেন্দ্র। এ বছর সেই পরিমাণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫০০ কোটি। আমরা প্রতিনিয়ত ভালো কাজ করে চলেছি, তাও কেবলমাত্র প্রতিহিংসার কারণে ওরা আমাদের বঞ্চিত করে চলেছে।”

অপরদিকে, সুখেন্দুশেখর রায় বলেন, “ওরা একাধিক প্রকল্পে নাম বদলের প্রসঙ্গ সামনে এনেছে। অথচ কোন ক্ষেত্রেই মুখ্যমন্ত্রীর নাম দেওয়া হয়নি। বরং ওরাই ২৩ টি প্রকল্পের মধ্যে ১৯ টিতে নাম বদল করেছে।” একই সঙ্গে ১০০ দিনের প্রকল্প নিয়ে তিনি জানান, “১০০ দিনের প্রকল্পটি মহাত্মা গান্ধীর নামে করা হয়েছে। এক্ষেত্রে নাম বদলের কোন প্রসঙ্গ নেই। তা সত্ত্বেও আমাদের পাওনা মেটানো হচ্ছে না। এ বিষয়ে একাধিকবার প্রশ্ন করা হলেও কোনো জবাব মেলেনি।”

Related Articles