VVIP গাড়ির জন্য যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ বরদাস্ত নয়! ট্রাফিক বিভাগকে কড়া নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ কলকাতার রাস্তায় ভিভিআইপি-রা যাতায়াত করলে সেই সময় যান চলাচল কখনোই বন্ধ করে রাখা যাবে না! এমনকি উল্টোদিকের রাস্তাতেও গাড়ি আটকানো যাবে না, সে যে কোন নেতা মন্ত্রী হোক, কিংবা স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। সম্প্রতি ট্রাফিক বিভাগের আধিকারিকদের উদ্দেশ্য এই সংক্রান্ত নির্দেশ দেয় লালবাজার (Lalbazar)। এক্ষেত্রে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশিকা অনুযায়ী তারা এই নির্দেশিকা দেয় আর এবার এই প্রসঙ্গে কড়া নির্দেশ দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা পুলিশকর্তারা এ বিষয়ে ট্রাফিক বিভাগকে সতর্ক করেছে বলে খবর।

   

উল্লেখ্য, মুখ্যমন্ত্রীর পদে শপথ নেওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্দেশ দেন যে, তাঁর গাড়ি যদি রাস্তার উপর দিয়ে যায়, তাহলে অন্যান্য প্রান্তে থাকা গাড়ি গুলিকে আটকে রাখা যাবে না। এটা বাঞ্ছনীয় নয়। কারণ হিসেবে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “যদি আমার জন্য অন্যান্য গাড়িগুলিকে আটকে রাখা হয়, তাহলে মানুষের ভোগান্তি বৃদ্ধি পাবে।”

তবে এক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে গাড়ি চলাচল একপ্রকার বন্ধ করে রাখতে হয় বলে জানান ট্রাফিক আধিকারিকরা। এবার এই প্রসঙ্গে কড়া নির্দেশ দিয়ে বসলেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী।

পুলিশের একটি মহলের দাবি, গত সপ্তাহে বিধানসভায় রওনা দেওয়ার সময় সম্পূর্ণ রাস্তা ফাঁকা দেখেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পরবর্তীতে কারণ হিসেবে তিনি জানতে পারেন যে, ভিভিআইপি-র গাড়ি যাওয়ার কারণেই যান নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে আর এরপরই এই বিষয়টি তিনি পুলিশকর্তাদের নিকট নিয়ে আসেন। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই কলকাতা শহরের মোট ২৫ টি ট্রাফিক গার্ডকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, ‘রাস্তা দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী কিংবা অন্য কোন ভিভিআইপি-র গাড়ি যাতায়াত করলে অন্য প্রান্তে যান চলাচল কখনোই নিয়ন্ত্রণ করা যাবে না।’

all india trinamool congress,state government,mamata banerjee,tmc,VVIP car,kollata,traffic police,lalbazar police

এই নির্দেশিকা প্রসঙ্গে এক পুলিশকর্তা বলেন, “আগে ডিভিআইপি-রা যখন যাতায়াত করতেন, তখন যান চলাচল কিছুটা নিয়ন্ত্রণ করা হতো। এবার সেই বিষয়টি নিয়ে ভাবা হচ্ছে। তবে যেহেতু মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার বিষয়টি মাথায় রাখতে হয়, সেই কারণে অন্যান্য প্রান্তে গাড়িগুলির ওপর নজর রাখতে হবে।”