টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

করোনার বেড়ে যাওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী মোদীকেই দায়ী করলেন তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডল

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দু লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে। কিন্তু এই করোনার বাড়বাড়ন্ত হতই না, যদি না লকডাউনের আগে ৫ দিন ট্রেন চালানোর অনুমতি দিত মোদী সরকার (Modi government)। বীরভূমের (Birbhum) তৃণমূল(TMC) জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের (Anubrata Mandal) দাবি এমনটাই। বুধবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘লকডাউন শুরুর আগে মোদী সরকার যদি গোটা ভারতবর্ষ জুড়ে অন্তত ৫ দিন ট্রেন চালিয়ে দিলে আজ দেশে করোনা থাকতোই না।

এই করোনা কিন্তু বৃদ্ধিই পেত না’। অনুব্রতর আরও দাবি, ভারতে করোনার বাড়বাড়ন্তের নায়ক মোদি সরকার। শুধু করোনা নিয়েই নয়, বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি পরিযায়ী শ্রমিকদের এই দুর্ভোগের জন্যই নরেন্দ্র মোদীকে দায়ী করলেন। তাঁর বিস্ফোরক দাবি, ‘গোটা দেশেই পরিযায়ী শ্রমিক যারা অন্য রাজ্যে কাজের সন্ধানে গিয়েছিলেন তাঁদের ওপর ভয়ঙ্কর অত্যাচার করছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। অথচ ক্রমাগত মিথ্যা কথা বলে চলেছে বিজেপি বলেও অভিযোগ অনুব্রত মণ্ডলের। পরিযায়ীদের সমস্যা নিয়ে তাঁর দাওয়াই, পরিযায়ী শ্রমিকরা কাজ না পেলে, খাবার না পেলে তাঁকে যেন ফোন করে।

তাঁদের ১০০ দিনের কাজ দেওয়া হবে বলে এদিন জানিয়ে দিলেন অনুব্রত মণ্ডল। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী দিনরাত এক করে পশ্চিমবঙ্গকে করোনা ও আমফানের ক্ষতি থেকে বাঁচিয়েছেন বলেও জানিয়ে দিলেন তিনি। তাঁর দাবি, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী একাই লড়াই করছেন করোনা ও আমফান বিপর্যয়ের সঙ্গে। অথচ বিজেপি মাত্র ১০০০ কোটি টাকা দিয়ে বড় বড় মিথ্যা কথা বলে চলেছে।

তাঁর কথায়, ‘রাজ্যকে শেষ করে দিচ্ছে বিজেপি’। শুধু তাই নয় প্রধানমন্ত্রীকে ধোঁকাবাজ বলেও আক্রমণ করেন তিনি। অনুব্রত মণ্ডল বলেন, ‘ওনার মতো ধোঁকাবাজ প্রধানমন্ত্রী গোটা পৃথিবীতে নেই।

ভারতবর্ষকে শেষ করে দিচ্ছেন, একের পর এক লকডাউনে একটা করে জিনিষ বিক্রি করে দিচ্ছেন। তিনি ভারতবর্ষকে কোথায় নিয়ে যাবেন সেটা আমিও জানিনা, আপনারাও জানেননা’। বিভিন্ন সময়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে এর আগেও বহুবার খবরের শিরোনামে এসেছেন বীরভূমের দোর্দণ্ডপ্রতাপ এই তৃণমূল নেতা। এবার করোনা ও আমফান নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নজীরবিহীন আক্রমণ করলেন।

Back to top button
Close