রেলের নিয়মের তোয়াক্কা না করেই ১২০ কিমি বেগে ছুটল ট্রেন, সাসপেন্ড হল দুই চালক

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ যাত্রী দূর দূরান্তে সফর করার জন্য চোখ বুজে ভরসা করে থাকে না ভারতীয় রেলের (Indian Railways) উপর। সময়ের  সাথে সাথে ভারতীয় রেলে এসেছে আমূল পরিবর্তন। কিন্তু ভারতীয় রেলের বিরুদ্ধে যাত্রীদের অভিযোগও রয়েছে ভুরি ভুরি। বিশেষ করে হামেশাই রেল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে যাত্রীরা তোলেন চরম অসাবধানতার অভিযোগ।

এবার তেমনই ভারতীয় রেলের নিয়ম অগ্রাহ্য করে নির্ধারিত সীমা লঙ্ঘন করে ঘন্টায় ১২০ কিলোমিটার গতিতে (120 kmph Speed) ট্রেন চালিয়ে রীতিমতো বালখিল্যতার  পরিচয় দিলেন দুই ট্রেন চালক (Loco Pilot)। সম্প্রতি এমনই এক চাঞ্চল্যকর ঘটনার সাক্ষী থেকেছে উত্তরপ্রদেশের গতিমান এক্সপ্রেস এবং  মালওয়া এক্সপ্রেস। যেখানে ওই দুই নির্দিষ্ট ট্রেন রুটের নির্ধারিত সীমা ছিল ২০ কিলোমিটার সেখানে তারা তা অগ্রাহ্য করে ১২০ কিলোমিটার গতিতে ট্রেন চালিয়েছিলেন।

এমনিতে হামেশাই যাত্রীদের নিরাপত্তা এবং সুরক্ষা নিয়ে বড় বড়  প্রতিশ্রুতি দিয়ে থাকে রেলমন্ত্রক। কিন্তু এই দিনের এই চাঞ্চল্যকর ঘটনা আরও একবার প্রমাণ করে দিল রেল যাত্রীদের প্রতি ভারতীয় রেলের চরম অনীহা।ঠিক কি ঘটেছিল সেই দিন? জানা গেছে বেশ কিছুদিন ধরেই আগ্রা শাখার জাজৌ এবং মানিয়া স্টেশনের মধ্যবর্তী অংশে রেলওয়ে ওভারব্রিজ তৈরির কাজ চলছে। 

তাই ট্রেন চলাচল বন্ধনা করা হলেও  পরিবর্তে সাবধানতা অবলম্বন করতে খুবই কম গতিতে অর্থাৎ ঘন্টায় সর্বোচ্চ ২০ কিলোমিটার গতিতে ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রেল।কিন্তু রেলের সেই নিয়মের তোয়াক্কা না করেই এদিন কার্যত যাত্রীদের  প্রাণ হাতে নিয়েই ওই দুটি ট্রেনের চালক এবং সহচালকরা ওই অংশে নির্ধারিত গতির থেকে প্রায় ৬ গুণ গতি বাড়িয়ে ট্রেন চালাতে শুরু করে দেয়। যার ফলে ঘটে যেতে পারতো মর্মান্তিক রেল দুর্ঘটনা।

আরও পড়ুন: ট্রেনের কনফার্ম টিকিট পাওয়া এখন আরও সহজ! মাত্র ২৫ শতাংশ দিয়েই করুন ‘সিট লক’

রেল বিশেষজ্ঞদের মতে ওই দুই লোক-পাইলটের চরম অনীহার কারণ ওই দুটি ট্রেন বে’লাইন হয়ে যাওয়ার প্রবল সম্ভাবনা ছিল। তাই যদি এই আশঙ্কা সত্যি হতো তাহলে রেলযাত্রীদের হতাহতের সংখ্যা ছুঁয়ে যেতে পারত হাজার হাজার। তাই ওই দুর্ঘটনার কথা আশঙ্কা করেই আঁতকে উঠছেন রেল মন্ত্রকের শীর্ষ অধিকারিকরা। ওই দুই ট্রেনের চালক এবং সহচালকের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই কাজে চরম দায়িত্ব জ্ঞানহীনতার  মতো অভিযোগ আনা হয়েছে।

rail 2

আর অভিযোগ উঠতেই তাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে রেল বোর্ড। ইতিমধ্যেই ওই চালক এবং সহ-চালককে সাসপেন্ড করা হয়েছে। পাশাপাশি তাদের বিরুদ্ধে চলছে বিভাগীয় তদন্ত। তবে জানা যাচ্ছে উত্তরপ্রদেশের এই ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়েই এবার থেকে রেলবোর্ড রেলের সমস্ত লোকোপাইলট এবং অ্যাসিস্ট্যান্ট লোকো পাইলটদের অন বোর্ড প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু করবে। একই সঙ্গে তাদের জন্য জারি করা হবে নির্দেশিকা। যার না মানলে আরও  কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

Anita Dutta
Anita Dutta

অনিতা দত্ত, বাংলা হান্টের কনটেন্ট রাইটার। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৪ বছরের বেশি সময় ধরে সাংবাদিকতা পেশার সাথে যুক্ত।

সম্পর্কিত খবর