টাইমলাইনআন্তর্জাতিক

ভাইয়ের সঙ্গে বিয়েতে নারাজ, তালাকের কথা বলায় দুই স্প্যানিশ বোনকে গুলি করে খুন পাকিস্তানে

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বাড়ি থেকে জোরপূর্বক নিজেদের ভাইয়ের সঙ্গে দেওয়া হয়েছিল বিয়ে! পরবর্তীতে বিদেশে চলে গেলেও স্বামীদের বিদেশে নিয়ে যেতে মানা এমনকি শেষ পর্যন্ত তালাক দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করা আর এই অপরাধেই সম্প্রতি নিজের মামার হাতেই খুন হতে হলো পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত দুই স্প্যানিশ বোনকে।

ঘটনাটি ঘটেছে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের গুজরাট জেলার নাথিয়া গ্রামে। আরুজ আব্বাস এবং আনিসা আব্বাস নামের ওই দুই মহিলাকে প্রথমে মানসিক এবং শারীরিক ভাবে অত্যাচার করা হয় এবং শেষে গুলি করে তাদের খুন করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ সূত্রে খবর, পাকিস্তানে থাকাকালীন নিজেদের ভাইয়ের সঙ্গে জোরপূর্বক বিয়ে দেওয়া হয় দুই বোনের। যদিও সেই বিয়েতে খুশি ছিল না তাঁরা কেউই কিন্তু পরিবারের চাপে শেষ পর্যন্ত তা মেনে নিতে হয়। এরপর কাজের সূত্রে আরুজ এবং আনিসা দুজনেই স্পেনে রওনা দেন এবং সেখানে দীর্ঘ এক বছরেরও বেশি সময় ধরে থাকেন।

অভিযোগ, এই সময় পরিবারের পক্ষ থেকে স্বামীদের স্পেনের ভিসা করিয়ে দেওয়ার জন্য তাদের উপর চাপ দেওয়া হয় কিন্তু তাতে ব্যর্থ হয় দুই বোন। পরবর্তীতে তাদের পাকিস্তানের ডেকে পাঠানো হয়। তবে সেখানে যে তাদের জন্য এক ভয়ঙ্কর ঘটনা অপেক্ষা করে রয়েছে, তা ঘুণাক্ষরেও টের পায়নি স্পেন নিবাসী দুই বোন।

ওই দুই মহিলার মা আজরা বিবি জানান, “আমার মেয়েদের পাকিস্তানে ডেকে পাঠানো হয়। এরপর তাদেরকে স্পেনের ভিসার ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে তারা উল্টে স্বামীদের সঙ্গে থাকতে মানা করে। এরপর সেই নিয়ে কথা কাটাকাটি শুরু হয় এবং শেষ পর্যন্ত আমার ভাই এবং ওদের স্বামীরা মিলে নির্যাতন চালায় এবং শেষ পর্যন্ত গুলি করে খুন করে। আমি আমার মেয়েদের বাঁচানোর অনেক চেষ্টা করেছিলাম কিন্তু শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হই।”

দুই বোন

এই ঘটনায় মৃতাদের ভাই (শাহরিয়ার), মামা (হানিফ) সহ আরো বেশ কিছুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অভিযুক্তদের কড়া শাস্তি হবে বলে এদিন জানিয়েছে তারা।

Related Articles

Back to top button