হবু বরের বুকে মাথা দিয়ে আদুরে ছবি! বিছানায় অন্তরঙ্গ হয়ে ভিডিও পোস্ট করলেন নন্দিনী দিদি

বাংলা হান্ট ডেস্ক : দিনকয়েক আগে নিজে মুখেই নিজের বিয়ের খবর জানিয়েছিলেন সকলের প্রিয় স্মার্ট দিদি ‘নন্দিনী’ (Nandini Didi)। ডালহৌসির অফিস পাড়ার ফুটপাতের উপর তার ভাতের হোটেলের (Pice Hotel) সাথে সকলেই পরিচিত। বৃদ্ধ বাবার সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে হোটেলের কাজকর্ম করেন তিনি। আর এখন তো তিনি পৌঁছে গেছেন সোজা সিনেমার পর্দায়। ভাইরাল দিদি (Viral Didi) এখন নায়িকা।

তবে কেরিয়ারের জটিলতায় নিজের ব্যক্তিগত জীবনকে হেলায় নষ্ট করতে রাজি নন তিনি। আর তাই তো বিয়ের বিষয়টা একপ্রকার পাকা করেই ফেলেছেন। দীর্ঘ দিনের প্রেমিক রুদ্র দাসের সঙ্গেই সাত পাকে বাঁধা পড়বেন তিনি। নিজে মুখেই জানিয়েছিলেন, ‘এখন বিয়ে না করলে আমার আর বিয়েই হবে না’! আর অবশেষে সেই রুদ্রর দেখা মিলল।

   

আসলে নন্দিনীর বিয়ের খবর ভাইরাল হতেই রুদ্রর পরিচয় জানার জন্য মুখিয়ে ছিল সকলে। আর এবার ভক্তদের কৌতুহল মিটিয়ে রোমান্টিক অবতারে ধরা দিলেন নন্দিনী এবং রুদ্র। ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করা এই রিলস ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে রুদ্রর বুকে মাথা দিয়ে শুয়ে আছেন তিনি। সেই সাথে হাত দিয়ে মুখ আর গালে আদরও করে দিচ্ছেন।

আরও পড়ুন : নিজের বোনেরই প্রেমে পড়ল ভাই! হানিমুনের ছবি সামনে আসতেই রেগে কাঁই নেটজনতা

ভিডিওর ক্যাপশনে লিখেছেন আদুরে বার্তা। নন্দিনী লিখেছেন, ‘হ্যাপি বার্থ ডে টু ইউ জি।’ সঙ্গে হ্যাশট্যাগে জুড়ে দেন Happy Birthday আর Love কথা দুটো। এর আগেই নন্দিনী একবার জানিয়েছিলেন যে তার প্রেমিক তথা হবু বর রুদ্রও হোটেল ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। তবে খাবারের হোটেল বা রেস্তোরাঁ নয়, থাকার হোটেল তার‌। আর সেটাও রয়েছে শিমলাতে।

আরও পড়ুন : মাস্টারস্ট্রোক মোদীর! আসছে ২৪ হাজার কোটি টাকার স্কিম, বিশেষ সুবিধা পাবেন দেশের কোটি কোটি জনতা

 

এদিকে নন্দিনীর কথা বললে, তিনি এখন বেজায় ব্যস্ত। একদিকে ছবির শুটিং, সেই সাথে নতুন আউটলেটের কাজ এবং হোটেলের কাজ সবটাই একা হাতে সামলাতে হচ্ছে তাকে। আর তার মাঝেই বিয়ের প্রস্তুতি তো আছেই। উল্লেখ্য, নন্দিনীর নতুন ছবির নাম ‘তিন সত্যি’। কেন্দ্রীয় চরিত্রে তিনিই অভিনয় করছেন। স্ক্রিন শেয়ার করবেন উত্তম কুমারের নায়িকা সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়ের সাথে। নন্দিনীর চরিত্রের নাম নিলাক্ষী, যিনি পেশায় একজন নায়িকা আবার গোয়েন্দাও বটে।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর