Viral Video: মারপিট চলাকালীন সজোরে ধাক্কা গাড়ির, উঠে নিয়ে ফের চলে লাথ-ঘুষি! দুই যুবকের কীর্তি ভাইরাল

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: বর্তমান সময়ে সোশ্যাল মিডিয়া (Social Media) ব্যবহার করেন না এমন মানুষ কার্যত খুঁজে পাওয়া মুশকিল। প্রতিদিন বিভিন্ন জায়গা থেকে হাজার হাজার পোস্ট সামনে আসে নেটমাধ্যমে। সেগুলির মধ্যে থাকে ভাইরাল (Viral) হওয়া ভিডিওগুলিও। যদিও, তাদের মধ্যে এমন কিছু ভিডিও থাকে যা দেখে রীতিমতো শিউরে উঠতে হয়। সেই রেশ বজায় রেখেই এবার একটি চাঞ্চল্যকর ভিডিও সামনে এসেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

যেখানে দেখা গিয়েছে, মাঝ রাস্তাতেই মারামারিতে জড়িয়ে পড়েছেন একদল কলেজ পড়ুয়া। ঠিক সেই সময়েই একটি দ্রুতবেগে ধেয়ে আসা গাড়ি সটান ধাক্কা মারে সেখানে থাকা দুই পড়ুয়াকে। এমনকি, ওই ধাক্কার তীব্রতা এতটাই ছিল যে, ওই পড়ুয়ারা রীতিমতো ছিটকে গিয়ে পড়েন। আর এই ভয়াবহ দৃশ্যই ফুটে উঠেছে ভিডিওটিতে।

প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছে যে, গাজিয়াবাদে এই ঘটনাটি ঘটেছে। এদিকে, এই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতে শুরু করার পরই পুলিশ বিষয়টির তদন্ত শুরু করেছে। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলেও জানা গেছে।

সূত্র অনুযায়ী, গত বুধবার উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদের হাই-টেক ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের বাইরে, কলেজে BCA অধ্যয়নরত জুনিয়র এবং সিনিয়র ছাত্রদের মধ্যে তুমুল ঝগড়া শুরু হয়ে যায়। এরপরই বিরোধ চরমে ওঠে এবং উভয় গ্রুপের শিক্ষার্থীরা একে অপরের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এমতাবস্থায়, ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে সেই ছবিই স্পষ্টভাবে ফুটে উঠেছে। এমনকি, দ্রুতবেগে আসা গাড়িটি দুই পড়ুয়াকে ধাক্কা দেওয়ার পরও মারপিট চালিয়ে যায় ছাত্ররা।

পুলিশ কি জানিয়েছে: এদিকে, এই চাঞ্চল্যকর ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে গাজিয়াবাদের রুরাল এসপি ইরাজ রাজা জানিয়েছেন যে, গাজিয়াবাদের মুসৌরি থানার একটি কলেজের বাইরে কিছু পড়ুয়ার নিজেদের মধ্যে মারামারি করার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। ওই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, একটি দ্রুতগামী গাড়ি দুই পড়ুয়াকে ধাক্কা দিয়েছে। ভিডিওটি নজরে আসার পর বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এছাড়াও, কয়েকজন পড়ুয়াকে আটক করার পাশাপাশি গাড়িটিকেও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এমনকি, যারা এই ঘটনার আসল দোষী তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর