টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গবিনোদনভাইরালভিডিওভিডিও গানরাজনীতি

‘জানি তুমি বুক পকেটে ভরে রাখো পুলিশ-গরু-কয়লা”, গান গেয়ে কেষ্টকে তুলোধোনা রুদ্রনীলের! ভাইরাল ভিডিও

বাংলাহান্ট ডেস্ক : গোরুপাচার কাণ্ডে বুধবার আবারও তাঁকে তলব করেছিল সিবিআই। কিন্তু এই নিয়ে পঞ্চমবার সিবিআইয়ের তলব এড়িয়েছেন তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডল। শারীরিক অসুস্থতার দোহাই দিয়ে নিজাম প্যালেসের সামনে দিয়েই এসএসকেএম হাসপাতালে গিয়ে ঢুকেছে কেষ্টর গাড়ি। সেখানকার উডবার্ন ওয়ার্ডের সাড়ে বারো নম্বর কেবিনেই চিকিৎসাধী তিনি। বিরোধীদের দাবি হৃদরোগ নয়, অনুব্রতর অসুখের নাম ‘সিবিআই’। সেই কারণেই অসুস্থতার দোহাই দিয়ে বারবার সিবিআইয়ের হাত থেকে পিছলে যাচ্ছেন তিনি।

কার্যতই চরমে পৌঁছেছে সিবিআই-অনুব্রত লুকোচুরি। হাইকোর্ট তৃণমূল নেতার রক্ষাকবচের আবেদন খারিজ করলেও তা নিয়ে যে খুব একটা ভাবিত নয় তিনি তা বলাই বাহুল্য। এই মুহুর্তে অনুব্রতর নতুন রক্ষাকবচ এসএসকেএম। আর তা যে দিব্যি কার্যকরও সেও বলার অবধি রাখে না। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই সোচ্চার হয়েছে বিরোধীরা। তুঙ্গে রাজনৈতিক তরজা। আর এবার সমালোচকদের দলে নাম লেখালেন বিজেপি নেতা তথা অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষও। এদিন নাম না করেই অনুব্রতকে একহাত নিলেন তিনি।

রুদ্রনীল এদিন নিজের ফেসবুক পেজে একটি কবিতার ভিডিও পোস্ট করেন। কবিতাটির নাম ‘ভালো থেকো অনুমাধব’। জয় গোস্বামীর মালতীবালা বালিকা বিদ্যালয় কবিতা অবলম্বনে এই কবিতায় উঠে এসেছে অনুব্রত মণ্ডলেরই একাধিক রাজনৈতিক অনুষঙ্গ। ফলে কবিতার মূল চরিত্র অনুমাধব যে অনুব্রতর নামান্তর যে বলে দিতে হয় না। এই অভিনব উপায়ে অনুব্রত মণ্ডলকে রীতিমতো একহাত নিতেছেন রুদ্রনীল। সেখানে বিজেপি নেতাকে বলতে শোনা যায়, ‘জানি তুমি বুক পকেটে ভরে রাখো পুলিশ, গরু, কয়লা/ অনুমাধব, পাঞ্জাবীতে দাগ লাগে না? হয় না কেন ময়লা?/ জানি তোমার কাপড় কাচে, তোমার কাছের দিদি/ দাগ না লাগার গুঁড়ো সাবান ঘষছে নিরবধি।’ তিনি আরও যুক্ত করেন, ‘ডাক্তার আর উকিল কেন তোমায় ঘিরে রাখে? / দিবা রাত্র পুলিশ কেন, তোমায় ঘিরে থাকে?’

শুধু অনুব্রতই নয়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি অভিনেতা। অনুমাধবের দিদি পরিচয়ে মুখ্যমন্ত্রীকেও তীব্র কটাক্ষ হেনেছেন তিনি। ওই কবিতায় তিনি আরও বলেন, ‘তোমার দিদি শিল্পি মানুষ,সবাই তাকে চেনে/এক ফোনেতেই আগুন ফাগুন, জীবন মৃত্যু কেনে।’

বলাই বাহুল্য, বিজেপি নেতা রুদ্রনীল ঘোষের এহেন কটাক্ষে রীতিমতো শোরগোল রাজনৈতিক মহলে। ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে ভিডিওটি। তবে এই প্রেক্ষিতে অনুব্রত মণ্ডল বা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কারওই কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

Related Articles

Back to top button