সোমেই চাকরিপ্রার্থীদের সঙ্গে বৈঠক শিক্ষামন্ত্রীর, কাদের খুলছে কপাল? বিরাট আপডেট

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ এসএলএসটি চাকরিপ্রার্থীদের (SLST Job Seekers) সঙ্গে ফের বৈঠক রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রীর। আগামী সোমবার বিকেল ৪টের সময় চাকরিপ্রার্থীদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন ব্রাত্য বসু (Bratya Basu)। নবম-দশম শ্রেণির চাকরিপ্রার্থীদের সঙ্গে হতে চলা এই বৈঠকে শিক্ষামন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত থাকবেন শিক্ষা সচিব মনীশ জৈন স্কুল, সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান সিদ্ধার্থ মজুমদার সহ শিক্ষা দফতরের বেশ কয়েকজন আধিকারিক। উপস্থিত থাকার কথা আছে তৃণমূল নেতা কুণাল ঘোষেরও।

শুক্রবার কুণালের (Kunal Ghosh) সঙ্গে চাকরিপ্রার্থীরা প্রায় ৩০ মিনিট বৈঠক করেন। এরপরেই সোমবার শিক্ষামন্ত্রীর (WB Education Minister) সঙ্গে বৈঠকের বিষয়টি স্থির করা হয়। নিয়োগ প্রক্রিয়ার অগ্রগতি কতটা হয়েছে তা নিয়েই এই বৈঠকে আলোচনা হবে বলে খবর। সোমবারের এই বৈঠকে (Meeting) চাকরিপ্রার্থীদের দু’জন প্রতিনিধি উপস্থিত থাকবেন বলেও জানা যাচ্ছে।

   

যদিও এই প্রথম নয়, এর আগেও চাকরিপ্রার্থীদের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। তবে চাকরিপ্রার্থীদের অভিযোগ, শেষ বৈঠকের পর ১ ফেব্রুয়ারি অবধি সময় দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এরপর এক মাসেরও বেশি সময় অতিক্রান্ত। এখনও কেন নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হল না? বিষয়টা কোথায় আটকে আছে? সোমবারের বৈঠকে কমিশনের চেয়ারম্যানের থেকে এই প্রশ্নগুলি উত্তর চাইবেন চাকরিপ্রার্থীরা।

আরও পড়ুনঃ ‘তৃতীয় দফায় সুপারফাস্ট স্পিডে এগোবে’! শিলিগুড়ির সভায় তৃতীয়বার সরকার গঠনের ইঙ্গিত মোদীর

অন্যদিকে আবার সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমের কাছে চাকরিপ্রার্থীদের নিয়ে একটি মন্তব্য করেন কলকাতা হাই কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। তা নিয়ে আবার মাথাচাড়া দিয়েছে বিতর্ক। এসএলএসটি চাকরিপ্রার্থীদের একাংশের অভিযোগ, বঞ্চিত চাকরিপ্রার্থীদের কথা ভাবেননি বিচারপতি হিসেবে অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া এই প্রাক্তন বিচারপতির কারণেই জট বেড়েছে, তাঁরাও চাকরি পাননি বলে অভিযোগ।

bratya basu slst job seekers

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের এসএলএসটি কর্মশিক্ষা এবং শারীরশিক্ষা চাকরিপ্রার্থীদের প্যানেল তৈরি হয়ে গেলেও নতুন মামলার কারণে তা এখনও আটকে আছে। সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে নিয়োগের জন্য শূন্যপদও তৈরি করেছিল রাজ্য সরকার। তবে আইনি জটের কারণে সেই প্রক্রিয়ার অগ্রগতি হয়নি। এই আবহে সোমবার চাকরিপ্রার্থীদের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। সেই বৈঠকের পর এই নিয়োগ-জট কাটে কিনা সেটাই দেখার।

Sneha Paul
Sneha Paul

স্নেহা পাল, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তরের পর সাংবাদিকতা শুরু। বিগত প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর