“বাচ্চাদের কবিতা এপাং-ওপাং-ঝপাং হবে না তো কী হবে!” নিজের কবিতার বই নিয়ে সাফাই মুখ্যমন্ত্রীর

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক : মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) ছবি আঁকা আর কবিতা (Poem) লেখার প্রতি ঝোঁকের কথা তো অনেকেই জানেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় (Social Media) সেসব নিয়ে চর্চাও হয় বিস্তর। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন লেখা ভাইরাল হয়ে থাকে সমাজমাধ্যমে। যার মধ্যে একটি বিশেষ লেখা হল ‘এপাং ওপাং ঝপাং’। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জায়গায় এই লেখাটি চর্চার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে থেকেছে। আর এবার ফের একবার সংবাদ শিরোনামে সেই লেখা।

এইদিন এক সভা মঞ্চে দাঁড়িয়ে আবারও এই ছড়া নিয়ে মন্তব্য করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। চলতি বছরেই একবার মুখ্যমন্ত্রীর এই কবিতার বই নিয়ে তীব্র কটাক্ষ করেছিলেন হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত গ্রন্থাগারে রাখা কিছু বইয়ের গুণগত মান নিয়ে বলতে গিয়ে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের লেখা কবিতা উল্লেখ করে তিনি বললেন, “এই অখাদ্য জিনিসগুলি গ্রন্থাগারে রাখবেন না।”

সেই ঘটনার পর নেটমাধ্যম থেকে শুরু করে সর্বত্রই হয়েছিল জোর তরজা। জাস্টিস গাঙ্গুলীর মন্তব্যের পাল্টা জবাব দেওয়ার জন্য সরব হয়েছিল তৃণমূল শিবির। মমতার ক্যাবিনেটের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য শোভনদেব তো সুকুমার রায়ের সঙ্গে তুলনা করে বলেন, ‘রাম গরুড়ের ছানা যদি কেউ পড়েন, তাহলে এটাও পড়বেন।’ তিনি বলেন, ছোটদের জন্য এই ধরনের কবিতা লেখা হয়। আর এবার একই সুর শোনা গেল মমতা ব্যানার্জির গলাতেও।

আরও পড়ুন : এবার বাংলায় বড় দুর্ঘটনা! আবারও লাইনচ্যুত হল বগি, প্রশ্নের মুখে রেল কর্তৃপক্ষ

এইদিন ভরা মঞ্চে দাঁড়িয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানালেন তার শখের কথা। পাশাপাশি তিনি ব্যক্তি জীবনে কী কী করতে পারেন সেটাও জানালেন। মুখ্যমন্ত্রীর কথা থেকে স্পষ্ট যে তিনি যেমন দক্ষ রাজনীতিবিদ, তেমনই গৃহকর্মেও নিপুণা। তিনি যেমন ভালো ঝগড়া করতে পারেন, তেমন ভালো রান্নাও করতে পারেন। আবার কাপড়কাচা, ধান রোয়ার মত কাজেও সমান পারদর্শী তিনি।

আরও পড়ুন : এবার নিজের কোম্পানি বেচে দিচ্ছেন গৌতম আদানি! হঠাৎ কী হল ভারতীয় ধনকুবেরের?

mamata banerjee

এইদিন কথা প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আমার একটা কবিতার বই বেরোলো। এক হাজার কবিতার বই। আরে বাচ্চাদের কবিতা এপাং ওপাং ঝপাং হবে না তো কী হবে?’ এই কথা বলার পরেই তিনি উদাহরণ টানেন ‘হাট্টিমা টিম টিম’ ছড়ার সাথে। তারপরই তিনি বোঝালেন এমন শব্দের ব্যবহার হওয়া স্বাভাবিক। সম্প্রতি এই ভিডিওটিই ব্যাপক ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর