টাইমলাইনভারত

কখন চলে যাবে পদ, সেই ভেবেই বিধায়ক থেকে মুখ্যমন্ত্রী সবাই দুঃখী! কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বয়ানে জল্পনা

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ সংসদীয় গণতন্ত্রকে শক্তিশালী করার জন্য সোমবার বিশেষ বার্তা দেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গডকরি (nitin gadkari) এবং সিনিয়র নেতা গোলাম নবী আজাদ। জয়পুরের বিধানসভা কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিত সংসদীয় ব্যবস্থা এবং জন প্রত্যাশা বিষয়ক কর্মশালায় অংশ নিয়ে তাঁরা এমন মন্তব্য করেন। কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের রাজস্থান শাখা এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলেন।

অনুষ্ঠানে উভয় নেতাই ‘সংসদীয় গণতন্ত্র শক্তিশালী হলে দেশও শক্তিশালী হবে’, এমনটা মন্তব্য রাখেন। তবে এই সভায় দাঁড়িয়ে বিধায়ক, মন্ত্রী এবং মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করতে ছাড়লেন না কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গডকরি। তিনি বলেন, ‘আর কতদিন এই পদে থাকতে পারবেন, এই চিন্তা করেই মুখ্যমন্ত্রী ভয় পাচ্ছেন’।

তিনি বলেন, ‘সকলেই সমস্যার মধ্যে রয়েছেন। মন্ত্রী না হওয়ার কারণে বিধায়ক দুঃখী। এরপর মন্ত্রী হয়ে গেলেও, সঠিক বিভাগ না মেলায় মন্ত্রী দুঃখী। আবার যদি ভালো বিভাগ পেয়েও যান, তাহলে মুখ্যমন্ত্রী না হতে পারার দুঃখ। আর মুখ্যমন্ত্রী দুঃখিত থাকেন, এই পদে আর কতদিন তিনি থাকতে পারবে এই চিন্তা করে’।

এদিনের অনুষ্ঠানে দাঁড়িয়ে নীতিন গডকরি আরও বলেন, ‘মানুষের ভাবনাকে বুঝে এগিয়ে যাওয়াটাই হল নেতৃত্ব দেওয়ার পথ। রাস্তায় সাইকেল রিক্সা দেখে আমি দুঃখিত হয়েছিলাম। কারণ, তাতে একজন বসে থাকলেও, অপরজন সেটাকে টেনে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তাই এর পরিবর্তে আমি ই-রিকশা চালু করি। এই কাজের জন্য অনেকেই আমাকে ভুল বুঝে বিষয়টিকে নিয়ে আদালতে পর্যন্ত গিয়েছেন। তবে আমি বলব, গরীবের জন্য আইন ভাঙতে হলে, আমি তা ভাঙব’।

Related Articles

Back to top button