টাইমলাইনলাইফস্টাইল

লিপস্টিক মাখেন রোজ ? ঠোঁট সুন্দ্র রাখতে মেনে চলুন এই কয়েকটি নিয়ম

মেয়েদের সুন্দর লাগার জন্য সাজের একটি অন্যতম প্রসাধনী হল লিপস্টিক। যেকোনো সাজের মধ্যে যদি একটু হাল্কা করে লিপস্টিক লাগানো যায়, তাহলে সেই সাজের একটা অন্য মাত্রা এনে দেয়। কিন্তু এই সাজের জন্য লিপ্সটিক সুন্দর করে লাগানোর প্রয়োজন পড়ে। প্রথমে গোলাপজল দিয়ে ঠোঁট পরিষ্কার করে ৫ মিনিট বসে থাকতে হবে।  এরপরে ঠোটটাকে সুন্দর করে শেপ দেওয়ার জন্য টোনার লাগিয়ে তা শুকিয়ে গেলে সামান্য ফাউন্ডেশন লাগিয়ে নিন।

আর ঠোটে লিপস্টিক লাগানোর আগে লাইনার দিয়ে ঠোট একে নিতে হবে, যাতে লিপস্টিক বাইরে বেরিয়ে না যায়। তবে তা ম্যাচিং করে লাগাতে হবে।  প্রথমে লিপস্টিক লাগানোর পর হালকা পাউডার নিয়ে ঠোঁটে পাফ করে নিতে হবে এতে ম্যট লুক আসবে। যেহেতু এখন ম্যট সবথেকে বেশি ট্রেন্ডিং।আর ঠোঁটে লিপস্টিক অনেক্ষন একই রকমের রাখতে ব্যবহার করা হয় লিপ প্রাইমারকারন এটি প্রাইমারের কাজ করে তাতে লিপ্সটিক অনেক্কখন লেগে থাকে মুছে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে না। তবে নিজের ঠোটের যত্ন নেওয়ার জন্য রোজ রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে, ভালো করে টোনার দিয়ে প্রথমে ঠোঁট পরিষ্কার করে নিতে হবে। আর ঠোটের লিপস্টিক ভালো করে তুলতে হবে না হলে ত্বকের ক্ষতি হবে। আর নারকেল তেল এক চা চামচ হালকা গরম করে ঠোঁটে ভালো ভাবে লাগিয়ে নিয়ে ঘুমাতে গেলে তা ত্বকের জন্য উপকারি।

আর মাঝে মাঝে নয় প্রতিদিন সকালে উঠে ঠাণ্ডা জল দিয়ে ঠোঁট পরিষ্কার করে নিতে হবে। ঠোঁট যাতে না ফেটে যায় সেইজন্য রোজ ক্রিম লাগানো দরকার। আর মাঝে মাঝে মড়া চামরা তুলে ফেলার জন্য স্ক্রাবার লাগানো খুব দরকার। নাহলে ঠোট দেখতে খারাপ লাগে। তাই আমাদের ত্বকের যত্ন নেওয়ার পাশাপাশি ত্বকের সাথে ঠোটের যত্ন নেওয়াও খুব দরকার। আর রোজ লিপস্টিক ব্যবহারের আগে এই জিনিসগুলি মাথায় রেখে চলা দরকার।

 

 

Related Articles