সবকিছুই আছে, শুধু খুঁজে পাবেন না ১ নম্বর প্ল্যাটফর্ম! দেশের এই রেলস্টেশনে এলে ঘুরে যাবে মাথা

বাংলা হান্ট ডেস্ক: আমাদের দেশে গণপরিবহণের ক্ষেত্রে একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হল রেলপথ (Indian Railways)। প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ মানুষ রেলপথের মাধ্যমেই পৌঁছে যান নিজেদের গন্তব্যে। এদিকে, ট্রেনে চেপে যাতায়াতের ক্ষেত্রে যাত্রীদের পৌঁছতে হয় স্টেশনে। এমতাবস্থায়, আমাদের দেশের বিভিন্ন রেলস্টেশন সম্পর্কে এমন কিছু চমকপ্রদ তথ্য রয়েছে যেগুলি সম্পর্কে অধিকাংশজনই জানেন না। বর্তমান প্রতিবেদনে আমরা ঠিক সেইরকমই এক অবাক করা তথ্য আপনাদের সামনে উপস্থাপিত করব।

মূলত, আজ আমরা আপনাদের কাছে যে স্টেশনটির বিষয়ে জানাবো সেটি দেশের এমন একটি স্টেশন যেখানে ১ নম্বর প্ল্যাটফর্মটিই অনুপস্থিত রয়েছে। সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, এই ব্যাপারে রেলের কাছেও কোনো সঠিক ব্যাখ্যা নেই। আমাদের পড়শি রাজ্য বিহারের বেগুসারাই জেলার বারাউনি রেলওয়ে জংশনে গেলে আপনি ১ নম্বর প্ল্যাটফর্মটি খুঁজে পাবেন না। এদিকে, শোনা যায় যে, বারাউনি রেলওয়ে জংশনটি সমগ্র এশিয়ার মধ্যে সবথেকে বেশি জমির ওপর তৈরি হয়েছে।

রেল বিশেষজ্ঞদের দাবি অনুযায়ী, বেগুসরাইয়ে প্রথম বারের জন্য গড়হারা রেলস্টেশনটি স্থাপন করা হয়েছিল ১৮৬০ সালে। যদিও, ১৮৮৩ সালে ওই স্টেশনটির কর্মকাণ্ড বন্ধ হয়ে যায়। বরং, তার বদলে ওই স্টেশনটি থেকে ৩ কিলোমিটার উত্তরে তৈরি করা হয় এই বারাউনি রেলওয়ে জংশনকে। তারপর থেকেই বারাউনি জংশনের উপর দিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে ট্রেন চলাচল করে। পাশাপাশি, বর্তমান সময়ে এটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ স্টেশন হিসেবেও বিবেচিত হয়।

আরও পড়ুন: এবার ঘুমোতে চলল “ক্লান্ত” প্রজ্ঞান! এরপরে আদৌ কি উঠবে জেগে? বড় তথ্য সামনে আনল ISRO

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, প্রতিদিন এই স্টেশন থেকে প্রায় ১ লক্ষ যাত্রী যাতায়াত করেন। শুধু তাই নয়, দেশের স্বাধীনতার কয়েক বছর পরে নিকটবর্তী ঐতিহাসিক এবং ধর্মীয় স্থান মিথিলাঞ্চলের প্রবেশদ্বার সিমরিয়ায় স্থিত গঙ্গা নদীর উপর রাজেন্দ্র সেতু নির্মাণ হলে বারাউনিকে জংশন হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: “ট্রেন”-কে বাংলায় কি বলে জানেন? এই উত্তর নেই বড় বড় বুদ্ধিজীবীদের কাছেও

এই স্টেশনে নেই ১ নম্বর প্ল্যাটফর্ম: জেনে অবাক হবেন যে, বারাউনি স্টেশনে নেই ১ নম্বর প্ল্যাটফর্ম। যদিও, স্থানীয় বাসিন্দারা কৌতুক করে বলেন যে বারাউনি জংশনের ১ নম্বর প্ল্যাটফর্ম নাকি দুই থেকে তিন কিলোমিটার দূরে রয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে পূর্ব-মধ্য রেলওয়ের তথ্য জনসংযোগ আধিকারিক বীরেন্দ্র কুমার জানিয়েছেন, “আসলে এমন কোনো ব্যাপার নেই। স্থানীয় মানুষ যেটিকে ১ নম্বর প্ল্যাটফর্ম বলেন সেটি ওই শহরের দ্বিতীয় রেলস্টেশন।”

You will not find platform number 1 in this station of the India

এদিকে, একজন রেলযাত্রী জানিয়েছেন, “ব্রিটিশ আমল থেকে এই স্টেশনের ২ থেকে ৯ নম্বর প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। যদিও, ১ নম্বর প্ল্যাটফর্মটা সেখানে নেই। তবে, কিছু কিছু ক্ষেত্রে দেশের অন্যান্য প্রান্ত থেকে আসা ট্রেন স্টেশনের ১ নম্বর প্ল্যাটফর্মে থামবে বলেও জানানো হয়। এমনকি, মাঝেমধ্যে তো আবার ১ নম্বর প্ল্যাটফর্মে ট্রেন থামার কথাও ঘোষণা করে ফেলে রেল। যার ফলে বাইরের যাত্রীরা ওই প্ল্যাটফর্ম খুঁজে পেতে সমস্যায় পড়েন। আসলে বারাউনি জংশনে ১ নম্বর প্ল্যাটফর্ম তো কখনই ছিল না।”