ব্রিগেডে নজরুলের কবিতা ভুললেন মীনাক্ষী! ড্যামেজ কন্ট্রোলে মমতাকে নিশানা সেলিমের

বাংলাহান্ট ডেস্ক : ভরা ব্রিগেডের মঞ্চে হঠাৎ তাল কাটল মীনাক্ষীর। কাজী নজরুল ইসলামের বিদ্রোহী কবিতাটি বলতে গিয়েই চাপে পড়ে যান নেত্রী। ‘আমি বিদ্রোহী রণক্লান্ত… সেদিন হব শান্ত… অত্যাচারির খড়গ কৃপাণ…!’ বলার পরেই জানান, ভুলে গেছেন তিনি। কোথাও কোনও ভনিতা নেই। ঠিক যেন পাশের বাড়ির কন্যা।

   

তবে, ভুলে গিয়েও একেবারেই অস্বস্তি বোধ করেননি এই বাম নেত্রী। বলা বাহুল্য, ভরা ব্রিগেড সমাবেশে এর আগে কোনও বাম নেত্রী এভাবে কবিতা বলতে গিয়ে ভুল করেছেন বলে মনে পড়ে না প্রবীণ রাজনীতিবিদদেরও। তবে মীনাক্ষীর এই ভুলকেই এদিনের ব্রিগেডের সাফল্য হিসাবে দাবি করছেন মহম্মদ সেলিমরা।

আরোও পড়ুন: ফের এতটা পরিমাণ বাড়ছে মহার্ঘ্য ভাতা! প্রকাশ্যে এল রাজ্যে নয়া সিদ্ধান্ত, বেজায় খুশি কর্মীরা

ডিওয়াইএফআইয়ের (DYFI) ব্রিগেডে বেশ ভালোই ভিড় জমেছিল। কানায় কানায় পূর্ণ ছিল ব্রিগেড। শূন্য আসনে থাকা বামেদের ব্রিগেডের এত ভিড় দেখে চোখ কপালে উঠেছে অনেকেরই। তবে, বিগ্রেডের এই সভাকে ঘিরে আগে থেকেই চর্চায় ছিল মীনাক্ষীর নাম। গোটা ব্রিগেড যেন তাকিয়ে ছিল তার দিকেই। তবে এদিন ব্রিগেডের মন জয় করলেন মীনাক্ষী।

যে কিশোরী একদিন বাবার হাত ধরে ব্রিগেডে আসতেন, যে কিশোরী একদিন দেখতেন গরিব মানুষের অধিকার রক্ষার স্বপ্ন, সেই মীনাক্ষী আজ রুজির কথা বললেন, রুটির কথা বললেন। সামনের সারিতে বসে থাকা কমরেডদের কথা জানানোর সাথে সাথেই প্রান্তিক মানুষের লড়াইয়ের কথাও বললেন।

আরোও পড়ুন : ১ মার্চ থেকে বড়সড় পরিবর্তন GST নিয়মে! এই বদল সম্পর্কে না জানলে পড়বেন বিপদে

এদিন অবশ্য মহম্মদ সেলিম আগেভাগেই টের পেয়েছিলেন যে মীনাক্ষীর এই ভুল ব্রিগেড সমাবেশের ‘শিরোনাম’ হয়ে যেতে পারে। সম্ভবত সেকারণেই নিজের ভাষণের শুরুতেই মীনাক্ষীর সেই ভুলের সাফাই দিলেন তিনি। সেলিম ভাষণ দিতে উঠে শুরুতেই বললেন,”কমরেড মীনাক্ষী উত্তেজনার বশে কাজী নজরুলের ‘বিদ্রোহী’ কবিতা উদ্ধৃত করতে গিয়ে বলল ভুলে গেছি। রণক্লান্ত তো। কিন্তু শান্ত হবে না।”

সেলিমের বক্তব্য, “এটাই বামপন্থা আর দক্ষিণপন্থার মধ্যে পার্থক্য। এখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হলে কখনও বলত ভুলে গেছি? নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi) হলে বলত ভুলে গেছি? কোনওদিন বলত না। ফ্যাসিস্টরা ভুল স্বীকার করে জানে না। মোদি-মমতার (Mamata Banerjee) মতো স্বৈরাচারীরা ভুল স্বীকার করতে জানে না।”

minakshi selim

পাশাপাশি ইয়ং বাহিনীকে শক্তিশালী করতে সেলিম আরোও বলেন, “বামপন্থীরা পারে। আমরা ভুল স্বীকার করতে পারি। ভুল স্বীকার করতে বামেদের বুক কাঁপে না। কারণ বামপন্থীরা সততার সঙ্গে রাজনীতি করতে পারে।” বস্তুত মীনাক্ষীর ভুলের সাফাই দিতে গিয়ে মূলত মমতাকে আক্রমণ করলেন সেলিম।