লিপ্‌স অ্যান্ড বাউন্ডসের ওই ১৬ ফাইলে কী আছে জানেন? শনিতেই সব ফাঁস, বিপাকে ED?

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ লিপস অ্যান্ড বাউন্ডস নিয়ে তোলপাড়। সম্প্রতি রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতির সূত্র ধরে উঠে আসে এই সংস্থার নাম। আর সেই নামেই এখন সরগরম রাজ্য। কিছুদিন আগে শিক্ষক কেলেঙ্কারির অভিযোগে জেলবন্দি কালীঘাটের কাকু (Kalighater Kaku) একাধিক ঠিকানায় একযোগ হানা দিয়েছিল ইডি। সেই সময় গোয়েন্দারা পৌঁছে যায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যা লিপস অ্যান্ড বাউন্ডসের (Leaps and Bounds) অফিসেও।

   

তল্লাশি চালানোর সময় অফিসে উপস্থিত ছিলেন সংস্থার কর্মী চন্দন বন্দ্যোপাধ্যায়। রাতভর তল্লাশি চালানোর পর প্রচুর নথি, ১টি হার্ড ডিস্ক ও ১টি মোবাইল ফোন বাজেয়াপ্ত করে চলে যান ইডি (ED) আধিকারিকরা। পরে, চন্দন ইডি-র গোয়েন্দাদের বিরুদ্ধে সংস্থার একটি কম্পিউটারে ১৬টি ফাইল অচেনা ডাউনলোডের অভিযোগ দায়ের করেন কলকাতা পুলিশের (Kolkata police) কাছে। ইডি-র বিরুদ্ধে দায়ের করা অভিযোগে বলা হয়, ২১ থেকে ২২ অগাস্টের তল্লাশির মধ্যে একটি ডেস্কটপ কম্পিউটারে ১৬ টি এক্সেল ফাইল ডাউনলোড করে ফেডারেল এজেন্সি।

সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ইতিমধ্যেই তদন্তে নেমেছে কলতাতা পুলিশ। এর মধ্যে এবার ইডি আধিকারিকের ডাউনলোড করা ১৬টি ফাইল দেখতে চাইলেন কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি তীর্থঙ্কর ঘোষ। বিচারপতির নির্দেশ, ‘‘ওই ১৬টি ফাইলে কী আছে আমি দেখব। শনিবারই নিয়ে আসুন। এ নিয়ে যাবতীয় বিতর্ক মেটাতে চাই।’’

আরও পড়ুন: কেন রাজ্যে লাগাতার লোডশেডিং? এবার কারণ ব্যাখ্যা করলেন শুভেন্দু, বললেন, কয়লা…

আজই ফাইল পুলিশকে আদালতে আনতে হবে। আর শনিবারই এই মামলার পরবর্তী শুনানির সম্ভাবনা। প্রসঙ্গত, ইডি বেআইনিভাবে লিপস এন্ড বাউন্ডসের অফিসে হানা দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্টের (Kolkata High Court) দ্বারস্থ হয়েছিলেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee)।

high court

বিচারপতি তীর্থঙ্কর ঘোষের এজলাসে দায়ের করা এই মামলায় অভিষেকের আইনজীবীর দাবি করেছেন, তার মক্কেলের বিরুদ্ধে ইডির দায়ের করা ECIR খারিজের আবেদনের রায়দান স্থগিত রয়েছে। সেই সময় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা তল্লাশি চালাচ্ছে। তাই এখনই মামলার শুনানির আবেদন করা হয়েছে। সেখানেই উঠে আসে ওই ১৬টি ফাইলের প্রসঙ্গ।

আরও পড়ুন: বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের কোন রায়টি বছরের সেরা জানেন? রিপোর্ট প্রকাশ করল হাই কোর্ট

অভিষেকের আইনজীবী আদালতে বলেন, ‘‘একটি কম্পিউটারের কোনও ফাইলই খোলা হয়নি। অথচ আর একটি কম্পিউটার থেকে কিছু ফাইল ডাইনলোড করা হয়েছে।’’ ওদিকে ইডি জানায় তাদেরই এক আধিকারিক তার মেয়ের হস্টেলের খোঁজে ওই কম্পিউটারে কিছু সার্চ করেছিলেন।sei সময় ফাইল ডাইনলোড হয়ে গিয়েছে। অভিষেকের আইনজীবী সওওয়াল, ‘‘ইডি অফিসাররা পিকনিক করতে গিয়েছিলেন?’’

এই শুনেই বিচারপতি তীর্থঙ্কর ঘোষ বলেন, ‘‘যে ১৬টি ফাইল নিয়ে এত বিতর্ক সেগুলি কি দেখেছেন? ওই ফাইল নিয়ে আসা হোক। আমি দেখতে চাই। এই বিষয়টির আগে নিষ্পত্তি করা প্রয়োজন।’’

সম্পর্কিত খবর