হোটেল, ওয়াটার রিসর্টের পর এবার সি প্লেন! লাক্ষাদ্বীপের হালহকিকত ফেরাতে বড় উদ্যোগ কেন্দ্রের

বাংলা হান্ট ডেস্ক: ভারত-মালদ্বীপ (India-Maldives) বিতর্কের মাঝে এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে উঠে এসেছে লাক্ষাদ্বীপ (Lakshadweep)। শুধু তাই নয়, এই ভারতীয় কেন্দ্রশাসিত দ্বীপপুঞ্জকে ঢেলে সাজানোর জন্য নেওয়া হচ্ছে একের পর এক গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। যেটির জন্য ইতিমধ্যেই দেশীয় সংস্থাগুলির পাশাপাশি এগিয়ে আসছে ভারতের “বন্ধু” দেশগুলিও।

   

উল্লেখ্য যে, লাক্ষাদ্বীপকে পর্যটনের একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থল হিসেবে বিবেচিত করে বড় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে টাটা গ্রুপ। জানা গিয়েছে যে, টাটা গ্রুপ ২০২৬ সালের মধ্যে সেখানকার সুহেলি এবং কদমত দ্বীপে দু’টি বিলাসবহুল হোটেল খোলার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। এমতাবস্থায়, লাক্ষাদ্বীপে ভ্রমণে আসা আন্তর্জাতিক পর্যটকদের পাশাপাশি দেশীয় পর্যটকদের জন্যও এটি একটি বড় প্রাপ্তি হবে। শুধু তাই নয়, ইতিমধ্যেই ভারতের বন্ধু দেশ ইজরায়েলও লাক্ষাদ্বীপের উন্নতির লক্ষ্যে মাঠে নেমেছে।

দেশটির তরফে জানানো হয়েছে যে, তারা সেখানে উন্নত জল পরিশোধন প্রযুক্তিকে কাজে লাগাতে চলেছে। মূলত, ওই প্রযুক্তির সাহায্যে সমুদ্রের নোনা জলকে বিশুদ্ধ করে পানযোগ্য করা হয়। যার ফলে লাক্ষাদ্বীপে পানীয় জলের সমস্যা মিটবে। এই প্রসঙ্গে ইজরায়েল জানিয়েছিল যে, গত মঙ্গলবার থেকেই এই প্রকল্পের কাজ শুরু করতে তারা প্রস্তুত। এদিকে, আরও একটি উল্লেখযোগ্য বিষয় হল মালদ্বীপের সঙ্গে চলা কূটনৈতিক টানাপড়েনের মধ্যেই আরব সাগরের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল লাক্ষাদ্বীপে নয়া বিমানবন্দরও চালু হওয়ার বিষয়টি সামনে এসেছে।

আরও পড়ুন: ভারতের প্রথম মাঝারি উচ্চতার ড্রোন বানাল আদানি গ্রুপ, তুলে দেওয়া হল নৌবাহিনীর হাতে, চমকে দেবে ক্ষমতা

যদিও, পরিবেশবিদদের মতে সেখানে বিমানবন্দর তৈরি হলে তা পারিপার্শ্বিক পরিবেশের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। পাশাপাশি, লাক্ষাদ্বীপে কোরাল রিফ থাকায় সেগুলিও প্রভাবিত হতে পারে বলে মনে করছেন পরিবেশবিদরা। এমতাবস্থায়, লাক্ষাদ্বীপে শুরু হতে চলেছে সি প্লেন পরিষেবা। যার ফলে পরিবহণের ক্ষেত্রে একটি নয়া মাত্রা যুক্ত হবে। ইতিমধ্যে গুজরাটে সি প্লেনের পরিষেবা শুরু হয়েছে। পাশাপাশি মালদ্বীপেও রয়েছে এই পরিষেবা। যেটির নয়া সংযোজন ঘটতে চলেছে লাক্ষাদ্বীপে।

আরও পড়ুন: এবার লাফিয়ে বাড়বে উৎপাদন! মোদীর ভূয়সী প্রশংসা করে গুজরাটে ৩৮,২০০ কোটির বিনিয়োগ মারুতি সুজুকির

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, সেখানে সি প্লেন পরিষেবার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের “Udan” স্কিমের মাধ্যমে একটি চুক্তি সম্পন্ন করেছে স্পাইসজেট। পাশাপাশি, সেই সংক্রান্ত রুটও সামনে এসেছে। যেটি অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, আপাতত ৮ টি রুটে শুরু হতে চলেছে সি প্লেন পরিষেবা। যা পর্যটকদের কাছে লাক্ষাদ্বীপকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলবে।

https://twitter.com/marinebharat/status/1743915175038853601?ref_src=twsrc%5Etfw%7Ctwcamp%5Etweetembed%7Ctwterm%5E1743915175038853601%7Ctwgr%5E71e6b8aa6d354ec35a1c7880ca625d43432a3a5c%7Ctwcon%5Es1_&ref_url=https%3A%2F%2Fwww.news9live.com%2Fbusiness%2Fcompanies%2Fspicejet-awarded-seaplane-services-contract-in-lakshadweep-amid-maldives-row-details-of-routes-2398700

এদিকে, সম্প্রতি লাক্ষাদ্বীপের সমুদ্রে প্রধানমন্ত্রী মোদীর স্নর্কেলিংয়ের পাশাপাশি, সাদা বালির ওপর ভ্রমণ এবং বিশাল নীল সৈকতে বিশ্রাম নেওয়ার ছবি প্রকাশ্যে আসার দিনই ৫০ হাজার মানুষ ওই দ্বীপ নিয়ে গুগলে অনুসন্ধান চালিয়েছেন। এমতাবস্থায়, লাক্ষাদ্বীপকে নিয়ে চলা উন্মাদনার মাঝেই সকলেই মনে করছেন যে এবার পর্যটকদের ভিড় বাড়বে ওই দ্বীপের সমুদ্র সৈকতে।