এবার লাগাতার ধর্মঘট! চরম হুঁশিয়ারি DA আন্দোলনকারীদের, বিপাকে পড়তে চলেছে রাজ্য

বাংলাহান্ট ডেস্ক : এবার নতুন পথে যেতে  চলেছে রাজ্যের মহার্ঘ ভাতা আন্দোলন। রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের একাংশ বা ডিএ আন্দোলনকারীরা এবার সাক্ষাৎ করতে চাইলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে। কর্মচারীদের এই দাবি যদি না মানা হয় তাহলে তারা হাঁটতে পারেন লাগাতার ধর্মঘটের পথে। রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের একাংশের পক্ষ থেকে এমনটাই ঘোষণা করা হল।

   

সোমবার শহীদ মিনারে সাংবাদিক সম্মেলন করা হয় সংগ্রামী যৌথ মঞ্চের তরফ থেকে। সাংবাদিক বৈঠকে আন্দোলনকারীরা জানিয়েছেন, কলকাতায় তারা একটি মিছিল করবেন আগামী ১৯ তারিখ। বিরাট সেই মিছিল শিয়ালদা, হাওড়া, হাজরা মোড় থেকে এসে মিলিত হবে শহীদ মিনারে। তারপর সেখানে একটি সভা হবে। সেদিন আন্দোলনকারীরা দেখা করতে চান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে।

আরোও পড়ুন: ৩০০০ অভিযুক্তের মধ্যে গ্রেফতার মাত্র ৪! শাহজাহান-কাণ্ডে রাজ্য পুলিশকে কড়া দাওয়াই হাইকোর্টের

মুখ্যমন্ত্রী যদি কর্মচারীদের সাথে সাক্ষাৎ না করেন তাহলে ২৯ তারিখ থেকে লাগাতার ধর্মঘটের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন কর্মচারীদের একাংশ। সংগ্রামী যৌথ মঞ্চের তরফে ভাস্কর ঘোষ আজ বলেছেন, এর আগে তারা সাক্ষাত করেছেন রাজ্যের মুখ্য সচিবের সাথে। তারপরেও তাদের দাবি মেটানো হয়নি। তাই এবার তারা সাক্ষাৎ করতে চান মুখ্যমন্ত্রীর সাথে।

আরোও পড়ুন : মাধ্যমিক পাশ মহিলাদের এবার সোনায় সোহাগা! চাকরি দেবে রাজ্য, দেখুন আবেদন পদ্ধতি

তাদের দাবি না মানা হলে ২৯ শে জানুয়ারি থেকে ধর্মঘট শুরু হবে। অনির্দিষ্টকালের জন্য চলবে এই ধর্মঘট। একাধিক সরকারি সংগঠন সংগ্রামী যৌথ মঞ্চের ডাকে সাড়া দিয়েছে বলে জানানো হয়েছে। ভাস্কর ঘোষ বলছেন, “১৯ তারিখে যদি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেখা না করেন তাহলে অনশন শুরু হবে। ধর্মঘট চলবে।” 

da hike

তিনি আরো বলেন, ” অচলাবস্থার জন্য সম্পূর্ণরূপে দায়ি থাকবেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। বিহারে ১ লাখ ২০ হাজার অস্থায়ি কর্মীকে স্থায়ি করা হয়েছে। শিক্ষকদেরও স্থায়ি করা হয়েছে। অথচ বিহার আমাদের থেকে ছোটো রাজ্য। জিএসটি কালেকশন সেই রাজ্যে কম। সেই রাজ্যে মদ বিক্রি বন্ধ। তারপরও তারা বেকার যুবক-যুবতীদের স্বার্থে এই পদক্ষেপ নিতে পারছে। আমাদের রাজ্য সরকার পারছে না।”