মদ, মাদক থেকে নগদ! বাংলা থেকে ৮১ কোটির সামগ্রী বাজেয়াপ্ত করল নির্বাচন কমিশন

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ শনিবার লোকসভা ভোটের (Lok Sabha Election 2024) নির্ঘণ্ট ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। সেই সঙ্গেই লাগু হয়েছে আদর্শ নির্বাচনী আচরণ বিধি। এরপর থেকে একাধিক উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে কমিশন (Election Commission)। সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গের ডিজিপি বদলের পাশাপাশি ৬টি রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিবের বদলের কথা ঘোষণা করা হয়েছে। এবার মদ, মাদক, নগদ মিলিয়ে বাংলা থেকে প্রায় ৮১ কোটির সামগ্রী বাজেয়াপ্ত করা হল।

লোকসভা নির্বাচনের (Lok Sabha Election) নির্ঘণ্ট ঘোষণার চারদিনের মাথায় বুধবার মুখ্য নির্বাচন আধিকারিকের দফতরের তরফ থেকে সংবাদমাধ্যমকে এই তথ্য জানানো হয়েছে। গত ১ মার্চ থেকে বাংলায় মদ, মাদকের পাশাপাশি নগদ বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। সেগুলি মিলিয়েই বাজেয়াপ্ত করা সামগ্রীর পরিমাণ প্রায় ৮১ কোটি টাকা হয়েছে বলে খবর।

ভোটের আগে নগদের কারবারের চল পশ্চিমবঙ্গে (West Bengal) খুব একটা ছিল না। বরং উত্তর অথবা দক্ষিণ ভারত থেকে এমন খবর বেশি সামনে আসতো। তবে সাম্প্রতিক অতীতে বাংলাতেও এই ‘ট্রেন্ড’ দেখা যাচ্ছে বলে দাবি অনেকের। গত শনিবার থেকে দেশজুড়ে লাগু হয়েছে আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি। মুখ্য নির্বাচন আধিকারিকের দফতর থেকে জানা যাচ্ছে, বিগত চারদিনে শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গ থেকে মডেল কোড অফ কন্ডাক্ট তথা আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের ১,২৭,৭২৬টি অভিযোগ জমা পড়েছে।

আরও পড়ুনঃ TMC কাউন্সিলরের বাড়িতে ডাকাতি, স্ত্রীয়ের হাত-পা বেঁধে…! খড়গপুরের ঘটনায় চাঞ্চল্য

বিশেষত কোচবিহার কেন্দ্রে অশান্তি হতে পারে, এমনটা আগে থেকেই আঁচ করা হচ্ছিল বলে জানা যাচ্ছে। এখনও অবধি তেমনটাই চোখে পড়ছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যাতেই কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী তথা বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিকের সঙ্গে রাজ্যে মন্ত্রীর উদয়ন গুহর হাতাহাতি অবধি হয়েছে। সেই ঘটনায় ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছিল, আজ জেলা শাসকের তরফ থেকে কমিশনকে সেই রিপোর্ট পাঠানো হয়েছে। জানা যাচ্ছে, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার এবং জলপাইগুড়ি থেকে আচরণবিধি ভঙ্গের একাধিক অভিযোগ জমা পড়েছে। সেই সংখ্যাটা প্রায় ১০,০০০ মতো। এর মধ্যে শুধুমাত্র কোচবিহার থেকেই ৬,০০০ অভিযোগ জমা পড়েছে বলে খবর।

election commission of india

এছাড়া কলকাতা উত্তর, বনগাঁ, মালদা উত্তর, মালদা দক্ষিণ, আসানসোল এবং দার্জিলিং- এই ৬টি কেন্দ্রকে ‘অর্থনৈতিক স্পর্শকাতর’ বলে চিহ্নিত করেছে নির্বাচন কমিশন। রাজ্যের ৪২টি লোকসভা কেন্দ্রের পাশাপাশি এই ৬টি কেন্দ্রের আয়-ব্যয়ের ওপর কমিশনের বাড়তি নজর থাকবে বলে খবর। ‘অর্থনৈতিক স্পর্শকাতর’ এই কেন্দ্রগুলিতে বেআইনি টাকার লেনদেন হতে পারে বলে আশঙ্কা। গত ভোটে এখান থেকে অর্থ এবং মদ বাজেয়াপ্ত হয়েছিল। সেই তথ্যের ভিত্তিতেই ‘অর্থনৈতিক স্পর্শকাতর’ কেন্দ্রগুলিকে চিহ্নিতকরণের কাজ করা হয়েছে।

Sneha Paul
Sneha Paul

স্নেহা পাল, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তরের পর সাংবাদিকতা শুরু। বিগত প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর