ফের আক্রান্ত ইডি! সন্দেশখালির ছায়া বনগাঁতেও, আইনি পথে হাঁটছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা

বাংলা হান্ট ডেস্ক : গতকাল সকাল থেকেই উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে রাজ্য রাজনীতি। সন্দেশখালির (Sandeshkhali) ঘটনা যেমন অবাক করা তেমন চিন্তারও বটে। দুস্কৃতিরা কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকেই যদি এইভাবে হেনস্থা করার সাহস দেখাতে পারে তাহলে সেখানে সাধারণ মানুষ কতটা সুরক্ষিত? এই প্রশ্নের উত্তর মিলতে না মিলতেই একই ছবি দেখা গেল বনগাঁতেও (Bongaon)। গতকাল ইডির (Enforcement Directorate) আধিকারিকদের দেখা মাত্রই মারমুখী হয়ে ওঠে একদল যুবক।

   

এইদিন রেশন দুর্নীতি কাণ্ডে প্রাক্তন পুরপ্রধান শঙ্কর আঢ্যকে সেখান থেকে গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়ার সময়ে বিক্ষোভের সামনা করতে হয় কেন্দ্রীয় আধিকারিকদের। সেখানে পরিস্থিতি সন্দেশখালির পর্যায়ে না পৌঁছালেও এবার ইডি ছেড়ে দেওয়ার পাত্র নয়। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই পুলিশের কাছে দ্বারস্থ হওয়ার কথা ভাবছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত শুক্রবার শঙ্কর আঢ্যকে গ্রেফতার করে ইডি। এইদিন বনগাঁয় তাকে বাড়ি থেকে তোলার সময় আশপাশের মহিলারা এসে ঘেরাও করে। ইডি বাহিনীর সামনে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করলে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানেরা পরিস্থিতি সামলে নেয়। এরপর নিয়ে আসা হয় শঙ্করকে। শোনা যাচ্ছে, বিষয়টি নিয়ে আইনি পথে হাঁটতে চলেছে ইডি অফিসাররা।

আরও পড়ুন : এবার আরও বেশি টাকা ঢুকবে অ্যাকাউন্টে, GPF-র নয়া সুদের হার ঘোষণা করল অর্থ মন্ত্রক

সেই সাথে খবর, এইদিন ইডিকে বাধা দিতে দুস্কৃতিরা মহিলাদের ব্যবহার করে। যাতে কোনও অফিসার এগিয়ে আসতে না পারে সেই জন্য এগিয়ে দেওয়া হয়েছিল স্থানীয় মহিলাদের। এমনকি শঙ্করকে গাড়িতে তোলার সময় ইডি-র গাড়ি লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টি অবধি করা হয়। এই ঘটনা থেকে একটা কথা স্পষ্ট যে, দুর্নীতির জালে সাধারণ মানুষের পাশাপাশি ইডি-ও বিপর্যস্ত। তদন্তে যাতে আর তথ্য সামনে আসতে না পারে তার সবরকম চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে দুস্কৃতিরা।

shankar 1704507467411 1704507474630

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গতকাল সন্দেশখালিতে তৃণমূল নেতা শাহজাহান শেখের বাড়িতে তল্লাশি চালাতে গিয়ে জনতার রোষানলে পড়ে ইডি আধিকারিকরা। তৃণমূল নেতার অনুগামীদের মারে গুরুতর জখম হন তিন আধিকারিক। একজনের মাথায় মোট ছ’টি সেলাই পড়েছে বলে খবর। একথা বলাই বাহুল্য যে, বাংলার তো বটেই সেই সাথে হয়ত ভারতের ইতিহাসেও লজ্জাজনক দিন হয়ে রইবে এই দিনটি। যদিও এই ঘটনার পর চুপ করে বসে থাকেনি ইডিও। ইতিমধ্যেই দায়ের হয়েছে অভিযোগ। তবে ইডি সূত্রে খবর, শাহজাহান নাকি বাংলাদেশ পালিয়ে গেছে। তারপর থেকেই রেড অ্যালার্ট জারি হয়েছে উত্তর ২৪ পরগনার সীমান্ত এলাকাগুলিতে। সেই সাথে আইবি-ও তৎপর হচ্ছে এই মামলায়।