এসেছিলেন মানুষের সেবা করতে, ৮ দিনেই তাল কাটলো! রাজনীতিকে ‘বিদায়’ অম্বতি রায়ডুর

বাংলা হান্ট ডেস্ক : মাত্র আটদিন যেতে না যেতেই হয়ে গেল মোহভঙ্গ। জনসেবা করার উদ্দেশ্যে রাজনীতিতে এলেও দিনকয়েক পরেই বদলে গেল সিদ্ধান্ত। রাজনীতির ময়দান ছেড়ে ফিরে গেলেন পুরনো দুনিয়াতেই। কিন্তু কেন এমন সিদ্ধান্ত? কী জানালেন চেন্নাই সুপার কিংসের প্রাক্তন তারকা আম্বতি রায়ডু (Ambati Rayudu)।

   

দিনকয়েক আগেই রাজনীতির ময়দানে নেমেছিলেন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার অম্বতি রায়ডু (Ambati Rayudu)। উদ্দেশ্য একটাই, ভারতীয় জনতার সেবা করা। তবে দিনকয়েক কাটতে না কাটতেই ভেঙে গেল সেই মোহ। সিদ্ধান্ত বদলে নাম তুলে নিলেন তিনি। নিজেই জানালেন, ‘কিছু সময়ের জন্য ওয়াইএসআরসিপি দল এবং রাজনীতি থেকে সরে যাচ্ছি। পরবর্তী সিদ্ধান্ত শীঘ্রই জানাব।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত ২৮ ডিসেম্বর অন্ধ্রপ্রদেশের শাসকদল ওয়াইএসআরসিপি-তে যোগদান করেছিলেন তিনি। দলের নতুন সদস্যকে স্বাগত জানিয়েছিলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী জগমোহন রেড্ডি। বিজয়বাড়াতে এক অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হয়েছিল বলে খবর। সেই ঘটনার এক সপ্তাহ কাটতে না কাটতেই বদলে গেল সব গল্প। সরে দাঁড়ালেন আম্বতি রায়ডু।

আরও পড়ুন : নতুন বছরে দারুণ চমক! বিশেষ খেতাব পেল নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন! বড় ঘোষণা রেলের

এর আগে চলতি বছরের জুন মাসে আম্বতি রায়ডু জানিয়েছিলেন যে, শীঘ্রই তিনি রাজনীতিতে আসছেন। তার নিজের জেলা গুন্টুরের মানুষজনের সাথে জন সংযোগও বাড়াচ্ছিলেন তিনি। জানিয়েছিলেন, রাজনৈতিক মহলে আসার তার আসল উদ্দ্যেশ্য হল মানুষের সেবা করা। সেই মত যোগ দিয়েছিলেন জগনমোহন রেড্ডির দলে। তবে তার ৮ দিন পরেই হল ছন্দপতন।

আরও পড়ুন : যে দাউদকে দিয়েছিলেন চ্যালেঞ্জ, সেই কিনলেন ‘ডনে’র সম্পত্তি! নিলামে বিকোলো পৈতৃক ভিটে

ambati rayudu

সোজাসাপ্টা ইস্তফা না দিলেও ঠারেঠোরে বুঝিয়েই দিলেন যে তিনি রাজনীতিতে আগ্রহী নন। তারপর থেকেই নানা ধরনের প্রশ্ন উঠছে রাজনৈতিক মহলে। নেটিজনদের প্রশ্ন, যদি তিনি আগ্রহীই না থেকে থাকেন তাহলে যোগ দিয়েছিলেন কেন? আর যদি নিজে থেকে আগ্রহী হয়ে যোগ দিয়েছিলেন তাহলে এই সাময়িক ইস্তফার মানে কী? প্রশ্ন এক নয় একাধিক, যার উত্তর কেবল আম্বতি রায়ডুই দিতে পারেন।