‘আমাকে চো** বলেছো, ভগবান তোমাকে ক্ষমা করবে না’, গম্ভীরকে সরাসরি হুমকি শ্রীশান্তের

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্কঃ সকলেই জানেন যে ২০১১ সালে ভারতীয় দল (Indian Cricket Team) যখন বিশ্বকাপ জিতেছিল তখন গৌতম গম্ভীর (Gautam Gambhir) এবং শান্তাকুমারন শ্রীশান্ত (S Sreesanth), দুজনেই সেই দলের অংশ ছিলেন। কিন্তু সেদিন যারা বিশ্বকাপ ট্রফি হাতে একসাথে আনন্দ উদযাপন করেছিলেন তাদের মধ্যে ১২ বছর পর দেখা গেল চূড়ান্ত ঝামেলা। লেজেন্ডস লিগ ক্রিকেট (Legends League Cricket) খেলতে গিয়ে উত্তপ্ত বাদানুবাদে জড়ালেন দুই তারকা।

   

গতকাল লেজেন্ডস লিগের এলিমিনেটর ম্যাচে গৌতম গম্ভীরের ইন্ডিয়ান ক্যাপিটালস মুখোমুখি হয়েছিল পার্থিব প্যাটেলের গুজরাট জায়ান্টসের। জায়ান্টসের হয়েই বোলিং করছিলেন শ্রীশান্ত। শ্রীশান্ত ১ উইকেট পেলেও গম্ভীরের হাফ সেঞ্চুরিতে ভর করে ওই ম্যাচে ক্যাপিটালস ১২ রানে জয় পায়। কিন্তু ওই ম্যাচে যখন শ্রীশান্তের বোলিংয়ের বিরুদ্ধে একের পর এক বড় শট খেয়েছেন গৌতম গম্ভীর তখন দুজনের মধ্যে কিছু উত্তপ্ত বাদানুবাদ হয়। সেই ঘটনার ভিডিও এই মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল।

তবে ম্যাচ শেষ হবার পরে শ্রীশান্ত হেরে যাওয়া দলের তরফ থেকে সমর্থকদের ধন্যবাদ জানাতে নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট থেকে একটি ভিডিও পোস্ট করেন। তখন বারবার ক্যামেরা তার দিকে ঘুরিয়ে তার বিরুদ্ধে বিস্ফোরক সমস্ত অভিযোগ আনেন শ্রীশান্ত। তিনি ভারতের অন্যান্য তারকা ক্রিকেটারদের সম্মান করে না এমনকি গম্ভীর ম্যাচে তাকেও নোংরা কথা বলেছেন বলে অভিযোগ করেছেন শ্রীশান্ত।

আরও পড়ুন: IPL-এর আগে আর মাঠে নামবেন না এই তারকা! BCCI আপত্তি জানাচ্ছে না এই বিশেষ কারণে

এর জবাবে গম্ভীর সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের হাসিমুখের ছবি পোস্ট করেন গম্ভীর। ক্যাপশনে তিনি শ্রীশান্তকে পরোক্ষভাবে জোর করে মনোযোগ করে নেওয়ার দোষে দুষ্ঠ বলেছিলেন। জবাবে সেই পোস্টেই কমেন্ট করেন শ্রীশান্ত।

আরও পড়ুন: রোহিত, কোহলির থেকেও কেন বিরল প্রতিভা হার্দিক? চমকে দেওয়া মন্তব্য প্রাক্তন ভারতীয় তারকার

শ্রীশান্ত বলেন, ‘আপনি একজন ক্রীড়াবিদ এবং একজন ভাইয়ের মতো ব্যক্তিত্বের মধ্যে থাকার সীমানা অতিক্রম করেছেন এবং সর্বোপরি, আপনি জনগণের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। তবুও, আপনি প্রতিটি ক্রিকেটারের সাথে দ্বন্দ্বে জড়াচ্ছেন। কি সমস্যা আপনার? আমি যা করেছি তা হল হাসি এবং চোখ দেখানো। আর জবাবে আপনি আমাকে একজন ফিক্সার বলছেন? সিরিয়াসলি? আপনি কি সুপ্রিম কোর্টের ঊর্ধ্বে? এমনভাবে কথা বলার এবং যা খুশি বলার অধিকার আপনার নেই। আপনি এমনকি মৌখিকভাবে আম্পায়ারদের গালিগালাজ করেছেন, তারপরও আপনি হাসিমুখের কথা বলছেন? আপনি একজন অহংকারী এবং সম্পূর্ণভাবে শ্রেণীহীন ব্যক্তি। যিনি আপনাকে সমর্থন করেছেন তাদের প্রতি শ্রদ্ধার কোনো অভাব নেই। গতকাল পর্যন্ত, আমি সবসময় আপনার এবং আপনার পরিবারের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেছি। যাইহোক, আপনি শুধুমাত্র একবার নয়, সাত বা আটবার অবমাননাকর শব্দ “ফিক্সার” ব্যবহার করেছেন। আপনি এমনকি আম্পায়ার এবং আমার প্রতি নোংরা শব্দ ব্যবহার করেছেন, ক্রমাগত আমাকে উত্তেজিত করার চেষ্টা করেছেন। আমি যা সহ্য করেছি তা যে কেউ অনুভব করেছে সে আপনাকে কখনই ক্ষমা করবে না। গভীরভাবে, আপনি জানেন যে আপনি যা বলেছেন এবং যা করেছেন তা ভুল ছিল। আমি নিশ্চিত এমনকি ঈশ্বরও আপনাকে ক্ষমা করবেন না।”