কত জমি খেয়েছে শিবু-উত্তমেরা? হিসেব জানতে এবার সন্দেশখালিতে ভূমি দফতরের ‘বিশেষ’ ক্যাম্প

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ সন্দেশখালি (Sandeshkhali) নিয়ে এবার নড়েচড়ে বসল রাজ্য সরকার। স্থানীয় প্রভাবশালী তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহান এবং তার সঙ্গীদের বিরুদ্ধে জমে থাকা জমি দুর্নীতির (land corruption allegation) অভিযোগের হিসেব-নিকেশ জানতে এ বার শিবির বসালো রাজ্য ভূমি ও ভূমি রাজস্ব দফতর। সূত্রের খবর, উত্তর ২৪ পরগনার সন্দেশখালির দুটি ব্লক মিলিয়ে মোট সাতটি শিবির করা হয়েছে।

   

রবিবার থেকে জমি লিজ় এবং পাট্টা সংক্রান্ত অভিযোগ শুনতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দিয়ে শিবিরের আয়জন করা হয়েছে সন্দেশখালিতে। হোর্ডিং-এ বড়বড় করে লেখা রয়েছে, ‘পরিবর্ধিত সমস্যা সমাধান জনসংযোগ।’ সন্দেশখালি-১ এবং সন্দেশখালি-২ ব্লকে ভূমি ও ভূমি রাজস্ব দফতর আয়োজিত সেই শিবির গুলিতে নিজেদের সমস্যা, অভিযোগ জানাতে রীতিমতো ঢল নেমেছে সাধারণ মানুষের।

ক্যাম্পে ভীড় জমানো মানুষদের জমি এবং পাট্টা সংক্রান্ত অভিযোগ শুনে তা যথাযতভাবে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সন্দেশখালির তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহান ও তার সঙ্গী উত্তর সর্দার ও শিবু হাজরাদের বিরুদ্ধে ক্ষমতা বলে বহু মানুষের জমি কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ সামনে এসেছে। জমি কেড়ে নিয়ে ভেড়ি করা এবং পাট্টা না দেওয়ার মত অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন সন্দেশখালির মানুষেরা। লোকসভা ভোটের আগে এই সমস্ত অভিযোগ খতিয়ে দেখতেই আবার চালু বিশেষ ক্যাম্প।

এর আগে মঙ্গলবারই রাজ্যের সেচমন্ত্রী পার্থ ভৌমিক (Partha Bhowmik) বলেছিলেন, গ্রামবাসীদের মধ্যে অনেকের মাছের ভেড়ি লিজ়ে নিয়ে টাকা না দেওয়ার মত অভিযোগ উঠেছে। সেই সমস্ত অভিযোগ দল সমাধান করে দেবে। তিনি বলেন,” লিজ়ের টাকা চাষের ভেড়ির টাকা না দেওয়া, বহদিন ধরে গ্রামবাসীকে প্রতারণা করার মত অভিযোগ সামনে এসেছে। ঠকে যাওয়া সাধারণ মানুষদের টাকা ফেরানোর ব্যবস্থা করবে তৃণমূল।’’

এখনও নেভেনি সন্দেশখালির আগুন। তার আগে রবিবারই উত্তপ্ত সন্দেশখালির পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে ঘটনাস্থলে যাচ্ছেন তৃণমূলের দুই মন্ত্রী, সুজিত বসু (Sujit Bose) এবং পার্থ ভৌমিক। সেখানে স্থানীয় তৃণমূল (TMC) নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক মত হতে পারে বলে জানা যাচ্ছে।

গত তিন সপ্তাহ ধরে বাংলার হটস্পট সন্দেশখালি। স্থানীয় এই তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে লাগাতার অত্যাচারের অভিযোগ তুলে রাস্তায় নেমে পড়েন সন্দেশখালির মহিলারা। তৃণমূল নেতা শাহজাহান শেখ এবং তার দুই ঘনিষ্ঠ নেতা শিবু হাজরা আর উত্তমের বিরুদ্ধে অত্যাচার, নির্যাতনের অভিযোগে জ্বলে ওঠে গোটা এলাকা। ইতিমধ্যেই পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন উত্তম ও শিবু। তবে এখনও অধরা শেখ শাহজাহান।

sandeshkhali

আরও পড়ুন: এবার রচনার ‘দিদি নম্বর ১’ এ মমতা, সকলকে চমকে এই প্রথমবার রিয়ালিটি শো-তে মুখ্যমন্ত্রী

এদিকে শনিবার সন্দেশখালিকাণ্ডে গণধর্ষণের (Gangrape Charges) ধারা যুক্ত করেছে পুলিশ। সন্দেশখালি ২ নম্বর ব্লকের সভাপতি শিবু হাজরা ও জেলা পরিষদের সদস্য উত্তম সর্দারের বিরুদ্ধে গণধর্ষণ খুনের চেষ্টার ধারায় মামলা রজু।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর