রাখি পূর্ণিমার আগেই ‘‌দিদি’‌র রাখির ব্যাপক চাহিদা! খুশিতে আত্মহারা শিল্পীরা

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ এটা আগস্ট মাস, পনেরো দিন পরই রাখীবন্ধন (Rakhi)। উত্তর থেকে দক্ষিণ ভাই-বোনের মিষ্টি সম্পর্কের এই উৎসবে মেতে উঠবেন রাজ্যবাসী। সপ্তাহ খানেক আগে থেকেই রাখির দোকানে পড়বে ভীড়। আর বর্তমানে নাওয়া-খাওয়া ভুলে রাখি তৈরির কাজে ব্যস্ত পূর্ব মেদিনীপুরে (Purba Medinipur) মহিষাদলের (Mahishadal) গড়কমলপুরের শিল্পীরা।

অন্যান্য পেশায় যুক্ত থাকলেও এলাকার অনেকেই এই কাজে হাত লাগিয়েছে। এতে একদিকে যেমন অর্থ উপার্জন হচ্ছে পাশাপাশি তেমনই সুন্দর সময়ও কাটছে। প্রতিবছরই নিত্যনতুন রাখির বেশ চাহিদা থাকে। তবে এবছর সেসব রাখিকে টেক্কা দিচ্ছেন বাংলার দিদি। আজ্ঞে হ্যাঁ! শিল্পীরা জানাচ্ছেন এই বছর দিদির (মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) ছবি দেওয়া রাখির চাহিদা তুঙ্গে।

মহিষাদলের গড়কমলপুরের মহিলারা রাখি তৈরির কাজে নিযুক্ত। প্রায় ১৫০ জন মহিলা রাখি তৈরি করেন। এই কাজের মধ্য দিয়েই স্বনির্ভর হচ্ছেন তারা। মোটামুটি সারা বছর ধরে রাখি তৈরী করলেও জুন থেকে অগস্ট মাস পর্যন্ত বাড়তি চাপ থাকে। কারণ কলকাতা সহ গোটা রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে এই রাখি যায়। আবার রাখি পূর্ণিমার এক সপ্তাহ আগে থেকে একাধিক জায়গায় স্টল করে শুরু হয় রাখি বিক্রি। উপচে পড়ে ভীড়।

আরও পড়ুন: কেন্দ্রের বরাদ্দ টাকা আর সরাসরি হাতে পাবেনা রাজ্য, থাকবে রিজার্ভ ব্যাঙ্কে! আসছে নয়া নিয়ম

মাত্র এক টাকা থেকে শুরু হয় সেসব রাখি। আর একশো টাকা পর্যন্ত দামের রাখিও পাওয়া যায়। এই বিষয়ে গড়কমলপুরের রাখি শিল্পীদের প্রধান ময়না মণ্ডল সংবাদমাধ্যমের সামনে বলেন, ‘‌১২–১৪ বছর ধরে রাখি তৈরি করছি। বাচ্চদের কার্টুনের ছবি থেকে শুরু করে রাজনৈতিক নেতা–নেত্রীদের ছবি দেওয়া রাখি তৈরি করি। তবে এবার দিদির রাখির চাহিদা বেড়েছে। দিদির রাখি সবসময়ই চলে। এই বছর অর্ডারটা আরও বেশি হয়েছে।’

rakhi didi

ময়নাদেবীর কথায়, ‘‌ প্রায় ১৫০ মহিলা এই রাখি তৈরির কাজের সঙ্গে যুক্ত। আগে যারা ১০০ দিনের কাজ করত এখন তারা এই কাজ করছে। আরেক কারিগর বলেন, ‘‌ঘরের কাজের পর রাখি তৈরির কাজ করি। ভাল লাগে। দু’‌পয়সা বাড়তি রোজগার হয়। ভালো লাগে। আসলে প্রচুর পরিশ্রমের পর কিছু টাকা পেলে খুব আনন্দ হয়।’‌

আরও পড়ুন:  মোদীর ডাকে সাড়া! বাড়িতে তেরঙ্গা ওড়াচ্ছেন হিজবুল জঙ্গির ভাই, ঘটনা শুনলে গায়ে কাঁটা দেবে

জাত-পাত, জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে সর্বদা সম্প্রীতি, একতার কথা বলেন রাজ্যের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। আর এবার সম্প্রীতির উৎসবে তার ছবি দেওয়া রাখির চাহিদাই উপচে পড়ছে। পঞ্চায়েত নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের সাফল্যের পর রাখি পূর্ণিমা পড়েছে। তাই মানুষজন এটা বেশি কিনছে।