মাত্র ৮৮ জন ভারতীয় সেনার দাপটে কাঁপছে চিন! মুইজ্জুর মাথা ব্যাথার কারণ জানেন? দ্বীপরাষ্ট্রে কী কাজ তাদের?

বাংলা হান্ট ডেস্ক : চিন (China) সফর থেকে ফিরেই ভারতকে (India) একের পর এক তোপ দেগে চলেছে মালদ্বীপ (Maldives) প্রেসিডেন্ট মহম্মদ মুইজ্জু (Mohamed Muizzu)। সূত্রের খবর, আগামী মার্চের মাঝামাঝি সময়েই ভারতকে তার সামরিক বাহিনী সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। সেই সাথে মুইজ্জুর বার্তা, ‘আমরা ছোট হতে পারি কিন্তু এটি আপনাকে ধমক দেওয়ার লাইসেন্স দেয় না।’

   

গত রবিবার বিকেলে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পাবলিক পলিসি সেক্রেটারি আবদুল্লাহ নাজিম ইব্রাহিম জানান, মালদ্বীপ প্রেসিডেন্ট মুইজ্জু আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতকে ১৫ মার্চের মধ্যে তার সামরিক ব্যক্তি প্রত্যাহার করতে বলেছেন। এই প্রেস ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় হাইকমিশনার মুনু মানওয়ারও। সেখানে বেশ স্পষ্ট ভাষাতেই বলা হয়, ‘ভারতীয় সামরিক কর্মীরা মালদ্বীপে থাকতে পারবে না। এটি রাষ্ট্রপতি ড. মোহাম্মদ মুইজ্জুর এবং এই প্রশাসনের নীতি।’

সেই সাথে চিনা সফরের পর মুইজ্জু আরও বলেন, ‘আমরা কারও বাড়ির উঠোনে নেই। আমরা একটি স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র।’ তিনি বলেন, দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয় একান্তই ব্যক্তিগত। তা সেটা যত ছোট দেশই হোক না কেন। এখন প্রশ্ন হল, মালদ্বীপে ঠিক কত ভারতীয় সেনা মোতায়েন রয়েছে? এবং তাদের কাজটাই বা কী? আজকের প্রতিবেদনে সেটাই জানাবো পাঠকদের।

আরও পড়ুন : যাকে ভোট দিতে না করেছিল চিন, তাকেই ক্ষমতায় আনল তাইওয়ান! মুখ পুড়লো বেজিং-র

সরকারি নথি অনুযায়ী, মালদ্বীপে মোট ৮৮ জন ভারতীয় সেনা মোতায়েন রয়েছেন। মালদ্বীপের বিভিন্ন স্থানে মোতায়েন রয়েছেন এই সেনা বাহিনী। প্রাথমিকভাবে মালদ্বীপের সৈনদের প্রশিক্ষণ দেওয়াই হচ্ছে তাদের কাজ। যুদ্ধকালীন পরিস্থিতিতে কী করা উচিত এবং কী করা অনুচিত সেটার প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন তারা। তবে মুইজ্জু সরকার চায়না যে, ভারতীয় সামরিক বাহিনী মালদ্বীপে থাকুক।

আরও পড়ুন : চাহিদা তুঙ্গে, লাক্ষাদ্বীপ ভ্রমণ সহজ করতে অতিরিক্ত বিমানের ঘোষণা করল এই সংস্থা! দেখুন টাইম টেবিল

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, মালদ্বীপের ইতিহাসে ভারতের অবদান অনেক। দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে এর। ১৯৮৮ সালে যখন লুতুফি নামক এক স্বৈরাচারী শাসক মালদ্বীপের উপর দখল নেওয়া শুরু করে তখন মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল গোটা বিশ্ব। সেই সময় ভারত মাত্র ৯ ঘন্টার মধ্যে ভারতের প্যারা মিলিটারি ফোর্স মালদ্বীপকে উদ্ধার করে লুতুফির হাত থেকে। এছাড়াও মালদ্বীপের উন্নয়নের স্বার্থে হাজার হাজার কোটি টাকার আর্থিক সাহায্য পাঠিয়েছে ভারত। করোনা কালেও উপহার স্বরূপ কোভিড ভ্যাকসিন পাঠিয়েছিল আমাদের দেশ। বিগত তিন দশকে এই প্রথম যে, মালদ্বীপ ভারতের বিরোধিতা করছে।