নতুন বছরে ইতিহাস গড়ল ISRO! লঞ্চ হল XPoSat স্যাটেলাইট, কাজ জানলে হয়ে যাবেন “থ”

বাংলা হান্ট ডেস্ক: ২০২৩ সালটি ISRO (Indian Space Research Organisation)-র জন্য চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। কারণ, গত বছরেই চন্দ্রযান-৩ (Chandrayaan-3)-এর বিরাট সাফল্যের পাশাপাশি সূর্যের দেশে পাড়ি দিয়েছে আদিত্য L-1 (Aditya L-1)। তবে, ২০২৪ সালেও ISRO-র রয়েছে একাধিক পরিকল্পনা। শুধু তাই নয়, নতুন বছরের একদম প্রথম দিনে শ্রীহরিকোটার সতীশ ধাওয়ান মহাকাশ কেন্দ্র থেকে এক্স-রে পোলারিমিটার স্যাটেলাইট (XPoSat) উৎক্ষেপণের মাধ্যমে নজির তৈরি করেছে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা।

   

মূলত, এই স্যাটেলাইট ব্ল্যাক হোল এবং সুপারনোভার মতো দূরবর্তী জিনিসগুলিকে স্টাডি করার জন্য লঞ্চ করা হয়েছে। ২০২১ সালে আমেরিকান স্পেস এজেন্সি NASA দ্বারা ইমেজিং এক্স-রে পোলারিমেট্রি এক্সপ্লোরার লঞ্চ করার পরে এটি ভারতের প্রথম পোলারিমেট্রি মিশন এবং বিশ্বের দ্বিতীয় পোলারিমেট্রি মিশন। তবে, প্রাথমিকভাবে এটি ২০২৩ সালের ডিসেম্বর মাসে লঞ্চ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পরে এটির লঞ্চের সময় পরিবর্তন করা হয়।

সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, পুরো বিশ্ব ISRO-র এই মিশনের উপর নজর রাখছিল। কারণ XPoSat এক্স-রে উৎসের রহস্য উদঘাটন করতে এবং ব্ল্যাক হোলের রহস্যময় জগত স্টাডি করতে সাহায্য করবে। ISRO-র সবথেকে নির্ভরযোগ্য পোলার স্যাটেলাইট লঞ্চ ভেহিকেল (PSLV) তার C58 মিশনে মেন এক্স-রে পোলারিমিটার স্যাটেলাইটকে (XPoSat) পৃথিবীর ৬৫০ কিমির নিম্ন কক্ষপথে স্থাপন করেছে।

ইতিহাস তৈরি করেছে ISRO: এই উৎক্ষেপণের জন্য ২৫ ঘন্টার কাউন্টডাউন শেষ হওয়ার পরে, ৪৪.৪ মিটার দীর্ঘ রকেটটিকে লঞ্চ করা হয়। সেই সময়ে সেখানে উপস্থিত বিপুল সংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন। এই মিশনের আয়ু হল প্রায় ৫ বছর।

https://twitter.com/isro/status/1741671127737577505?ref_src=twsrc%5Etfw%7Ctwcamp%5Etweetembed%7Ctwterm%5E1741730593946423567%7Ctwgr%5Ed73f7e94101a2f8f1d3f17e28ce091c5b5651b79%7Ctwcon%5Es3_&ref_url=https%3A%2F%2Fwww.hindustantimes.com%2Fscience%2Fisro-xposat-launch-live-updates-india-space-mission-today-january-1-black-holes-pslv-c58-101704070451070.html

এদিকে, মিশন কন্ট্রোল সেন্টার থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময়ে, ISRO চেয়ারম্যান এস সোমনাথ জানিয়েছেন, “আপনাদের সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা। PSLV-র আরেকটি সফল মিশন ১ জানুয়ারি, ২০২৩-এ সম্পন্ন হয়েছে। PSLV-C58 মূল উপগ্রহ ExoSat-কে নির্ধারিত কক্ষপথে স্থাপন করেছে।” তিনি আরও বলেন, “এই বিন্দু থেকে, PSLV-র চতুর্থ পর্যায়ের কক্ষপথটি একটি নিম্ন কক্ষপথে পরিবর্তিত হবে যেখানে ‘পিওএএম’ নামক PSLV-র ওপরের স্তরটি পেলোড নিয়ে পরীক্ষা চালাবে এবং এতে কিছুটা সময় লাগবে।”

আরও পড়ুন: বিনিয়োগ করতে হবে মাত্র ২,০০০ টাকা! নতুন বছরে আপনাকে মালামাল করে দেবে এই ৩ টি ব্যবসা

এই মিশনের দিকে তাকিয়ে গোটা বিশ্ব: তিনি বলেন, “আমি আরও উল্লেখ করি যে, স্যাটেলাইটটি যে কক্ষপথে স্থাপন করা হয়েছে সেটি একটি চমৎকার কক্ষপথ এবং লক্ষ্যের কক্ষপথটি ৬৫০ কিলোমিটার বৃত্তাকার কক্ষপথ থেকে মাত্র তিন কিলোমিটার দূরে। যেটি ভালো কক্ষপথের অবস্থানের মধ্যে অন্যতম একটি। পাশাপাশি, দ্বিতীয় বিষয়টি হল স্যাটেলাইটের সোলার প্যানেল সফলভাবে ইনস্টল করা হয়েছে।”

আরও পড়ুন: নতুন বছরে মেনে চলুন আচার্য চাণক্যের এই পরামর্শগুলি! প্রতিটি ক্ষেত্রে মিলবে নিশ্চিত সাফল্য

এদিকে, মিশন ডিরেক্টর জয়কুমার এম জানিয়েছেন, “আমি PSLV-র ৬০ তম ফ্লাইটের সাফল্য উদযাপন করতে পেরে অত্যন্ত আনন্দিত। আজকের সফল উৎক্ষেপণ সম্ভব হয়েছে অন্যান্য স্টেকহোল্ডারদের সাথে সমগ্র ISRO টিমের অসাধারণ প্রচেষ্টার কারণে। ISRO-র বিভিন্ন কেন্দ্রের একাধিক দলের প্রচেষ্টা ছাড়া এই মিশন সম্ভব হত না।”