মমতার উল্টো সুর বাবুলের গলায়, চোর নেতাদের নিয়ে বড় মন্তব্য বালিগঞ্জের বিধায়কের

বাংলা হান্ট ডেস্ক : গত বৃহস্পতিবার নেতাজি ইনডোর সভা থেকে একপ্রকার রণংদেহি মেজাজে ধরা দিয়েছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্পষ্টই জানিয়ে দিয়েছিলেন, দুর্নীতির অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া নেতাদের পাশেই রয়েছে তার দল। তিনি বলেছিলেন, ‘‘আমি বিশ্বাস করি না বালুরা চোর!’’ আবার বাবুল সুপ্রিয়র গলায় শোনা গেল ভিন্ন সুর।

চারের বদলে আট

   

এইদিন দলীয় কর্মসূচি থেকে মমতা জানান, ‘কেষ্ট জেলে, পার্থ জেলে, মানিক জেলে, বালু জেলে। এটাই চলবে? যখন আপনারা (বিজেপি) আগামী দিন চেয়ারে থাকবেন না, তখন কোথায় থাকবেন, সেলে না কোলে?’ এরই সাথে তৃণমূল সুপ্রিমোর হুঙ্কার, চারের বদলে আট জনকে গ্রেফতার করা হবে। আর এবার এই নিয়েই মুখ খুললেন রাজ্যের মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়।

আরও পড়ুন : নিরলস পরিশ্রমের পর সাফল্যের হাতছানি! চিনে নিন উত্তরকাশীর উদ্ধারকাজের নেপথ্যের ৪ নায়ককে

গ্রেফতার হওয়া নেতাদের পাশে নেই দল, জানালেন বাবুল সুপ্রিয় 

মঙ্গলবার বেশ ভালো রকম উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল বিধানসভার হাওয়া। অধিবেশনে পার্থ চট্টোপাধ্যায়, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকদের নাম করে ‘চোর’ বলে আক্রমণ শানান বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী-সহ বিজেপি বিধায়কেরা। সভা থেকে বেরিয়ে পাল্টা জবাব দেয় বাবুল। তিনি বলেন,‘‘আমি এটা মানছি যে, আমাদের কিছু নেতা কিছু ঘটনায় গ্রেফতার হয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে কিছু অভিযোগও রয়েছে। আদালত এবং বিচারব্যবস্থা পুরোটা দেখছে। পার্টি অবস্থান স্পষ্ট করে দিয়েছে যে, ওদের সঙ্গে নেই। পদ থেকেও অপসারণ করা হয়েছে।’’

আরও পড়ুন : অবশেষে মিললো সাফল্য! এক ঘন্টার মধ্যে বেরিয়ে এলেন ৩৫ জন শ্রমিক, স্বস্তি দেশে

অন্য সুর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গলায় 

যদিও বাবুলের সাথে বাস্তব ঘটনার পুরোপুরি মিল নেই। কারণ পার্থকে গ্রেফতার করার পরপরই তার মন্ত্রিত্ব ও দলের মহাসচিব পদ কেড়ে নেওয়া হলেও জ্যোতিপ্রিয় এখনও মন্ত্রী পদে বহাল রয়েছেন। অনুব্রতর হয়ে এখনও কথা বলে থাকেন তৃণমূল সুপ্রিমো। কেষ্টোর গ্রেফতারির প্রায় ১৫ মাসের বেশি সময় পর তার সভাপতি পদ খারিজ করা হয়। এবং এই বিষয়ে মমতা ব্যানার্জি বলেন, ‘কেষ্ট যত দিন না ফিরছে, তত দিন কোর কমিটি বীরভূমের সংগঠনের কাজ চালাবে’।

violence politics

যারপর স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে, দল কি সত্যিই ধৃত নেতাদের পাশে নেই? অন্তত এর আনুষ্ঠানিক কোনও ঘোষণা তো তৃণমূলের তরফ থেকে করা হয়নি। উলটে নানা সভায় শোনা গেছে পার্থ, কেষ্টো, বালুদের নাম। তার থেকেও বড় বিষয় হল, এইদিন তৃণমূলের মুখপাত্রও বাবুলের মঙ্গলবারের মন্তব্য নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিতে চাননি। উলটে কলকাতা পুরসভার কাউন্সিলর অরূপ চক্রবর্তী বলেন, ‘কেউ অভিযুক্ত মানেই সে দোষী প্রমাণিত নয়।’