আয়তন মাত্র ২৫০ মিটার! বসবাস করেন ২৭ জন, এটাই হল বিশ্বের সবচেয়ে ছোট দেশ

বাংলা হান্ট ডেস্ক: পৃথিবীতে চিন, রাশিয়া, ভারত এবং আমেরিকার মত একাধিক বড় বড় দেশ রয়েছে। পাশাপাশি, এই দেশগুলি প্রায় সবসময়ই কোনো না কোনো কারণে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে থাকে। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, এই দেশগুলিতে কয়েক কোটি মানুষ বসবাস করেন। কিন্তু, বর্তমান প্রতিবেদনে আজ আমরা আপনাদের কাছে এমন একটি দেশের প্রসঙ্গে জানাবো যেটির আয়তন হল মাত্র ২৫০ মিটার। এমনকি, সেখানে বসবাস করেন মাত্র ২৭ জন। হ্যাঁ, প্রথমে শুনে কিছুটা অবিশ্বাস্য মনে হলেও এমনই একটি দেশ কিন্তু সত্যিই রয়েছে। শুধু তাই নয়, ওই দেশটি বিশ্বের সবচেয়ে ছোট দেশের তকমাও পেয়েছে। মূলত, বর্তমান প্রতিবেদনে আজ আমরা ইংল্যান্ডের (England) সিল্যান্ডের (Sealand) প্রসঙ্গ উপস্থাপিত করব।

   

উল্লেখ্য যে, সিল্যান্ড ইংল্যান্ডের সাফোক বিচ থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। এই ছোট দেশটি একটি ধ্বংসপ্রাপ্ত সামুদ্রিক দুর্গের উপর অবস্থিত রয়েছে। যা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় নির্মিত হয়েছিল। ওই দুর্গটি ব্রিটেন নির্মাণ করে। যদিও, পরে তা খালি করে দেওয়া হয়েছিল। তখন থেকেই সিল্যান্ড (মাইক্রো নেশন) বিভিন্ন জনের দখলে রয়েছে।

সিল্যান্ডে মাইকেলের শাসন: ২০১২ সালের ৯ অক্টোবর, রয় বেটস নামে একজন ব্যক্তি নিজেকে সিল্যান্ডের যুবরাজ ঘোষণা করেছিলেন। যদিও, আপাতত তিনি মারা গেছেন। এদিকে, রয় বেটসের মৃত্যুর পর সিল্যান্ড তাঁর ছেলে মাইকেল দ্বারা শাসিত হয়। এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, মাইক্রো নেশন হল সেই সব দেশ, যেগুলি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পায়নি। অর্থাৎ এই দেশগুলি একটি দেশের অংশ হিসেবে বিবেচিত হয়।

বেঁচে থাকার জন্য কোনো সম্পদ নেই: মাইক্রো নেশন সিল্যান্ডের আয়তন হল ২৫০ মিটার। তবে, দুর্গের উপর অবস্থিত এই দেশটি এখন প্রায় ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে।। পাশাপাশি, সিল্যান্ড রাফ ফোর্ট নামেও পরিচিত। সিল্যান্ড সমুদ্রের মাঝখানে মাত্র ২৫০ মিটার আয়তন জুড়ে বিস্তৃত রয়েছে। তাই সেখানকার মানুষের কাছে বসবাসের জন্য কোনো সম্পদ নেই। তবে, অন্যান্য দেশের মানুষ যখন এই দেশ সম্পর্কে জানতে পারে, তখন প্রচুর অনুদান আসতে শুরু করে।

sealand world smallest country

এমতাবস্থায়, ওই দান প্রাপ্তির ফলে সেখানকার মানুষের জীবনযাত্রার প্রয়োজনীয় রসদগুলির পূরণ হয়েছে। উল্লেখ্য যে, যদিও সিল্যান্ড পৃথিবীর সবচেয়ে ছোট দেশ, তাও পৃথিবীর সবচেয়ে ছোট দেশ হিসেবে ভ্যাটিকান সিটিকেই প্রাধান্য দেওয়া হয়। এটি ইতালির রাজধানী রোমের মাঝখানে অবস্থিত রয়েছে।

সম্পর্কিত খবর