টাইমলাইনভারতখেলাআন্তর্জাতিকক্রিকেট

নেবেন না কোনও পারিশ্রমিক, নিঃস্বার্থে করবেন দেশের সেবা! মাহির প্রশংসায় পঞ্চমুখ গোটা ভারত

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে তাকে মেন্টর পদে নিয়োগ করে মাস্টার স্ট্রোক দিয়েছে বিসিসিআই। তিন তিনবার আইসিসি ট্রফি জয়ী অধিনায়ককে কার্যত পাঠানো হয়েছে কোহলিদের বড় দাদা হিসেবে। তবে ক্যাপ্টেন কুল মহেন্দ্র সিংহ ধোনি এখনও আইপিএল খেলছেন। আর সেই কারণেই তার বিরুদ্ধে উঠেছিল স্বার্থের সংঘাত সংক্রান্ত প্রশ্ন। জানিয়ে রাখি এই স্বার্থের সংঘাত সংক্রান্ত প্রশ্ন এর আগেও সমস্যায় ফেলেছে বহু ক্রিকেটারকে। বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এবং রাহুল দ্রাবিড়ের মত কিংবদন্তিও শিকার হয়েছিলেন এই কনফ্লিকট অফ ইন্টারেস্টের।

তবে ধোনি যেমন সবেতেই এগিয়ে থাকেন তেমনি স্বার্থের সংঘাত সংক্রান্ত কোন প্রশ্ন ওঠার আগেই তা শেষ করে দিলেন তিনি। কারণ বিসিসিআই পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে, ধোনি যা করছেন তার সবটাই তিনি করছেন নিঃস্বার্থে। এ ধরনের প্রশ্ন ওঠার পরেই সচিব জয় শাহ ট্যুইট করে জানিয়েছেন, ভারতীয় দলের মেন্টর পদে কাজ করার জন্য একটি টাকাও পারিশ্রমিক নিচ্ছেন না মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। তিনি শুধুমাত্র দেশের সেবা করতে চান, ক্রিকেট এবং সর্মথকরা তাকে যা দিয়েছে তা ফিরিয়ে দিতে চান দেশকে।

ধোনির বয়স বর্তমানে প্রায় ৪০। এমন এক প্রবীণের পক্ষে দীর্ঘদিন বায়ো বাবেলে কাটানো সহজ কথা নয়। কিন্তু শুরু থেকেই আর্মিকে ভালোবাসেন ধোনি। আর তাই দেশের জন্য কর্তব্য তার কাছে সব থেকে আগে। একথা কার্যত ফের একবার প্রমাণ করে দিলেন তিনি। বিসিসিআই তরফে এই ঘটনা সামনে আসার পরেই ফের একবার প্রাক্তন অধিনায়কের প্রশংসায় মেতেছেন নেটিজেনরা। ২০০৭ সালে প্রথমবার ধোনির হাত ধরেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ট্রফি জয় করেছিল ভারত, তারপর থেকে অবশ্য আর সোনালী ট্রফি ছুঁয়ে দেখতে পারেনি মেন ইন ব্লু।

এবার তাই প্রিয় চিকুকে সঙ্গে নিয়ে ফের একবার নিজের সবটুকু উজাড় করে দিতে চান ধোনি। আগে যেভাবে তিনি খেলা পরিচালনা করতেন স্ট্যাম্পের পিছনে দাঁড়িয়ে কার্যত এবারও সেটাই করবেন কোহলিদের প্র্যাকটিসে। ধোনি পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, দলের প্রধান কোচ হবার কোন আকাঙ্ক্ষা নেই তার। তিনি শুধুমাত্র কাজ করতে চান এই বিশ্বকাপের জন্যই। বিশ্বকাপের পর অধিনায়কত্ব পর্ব থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন বিরাট কোহলিও। তাই তিনিও চাইবেন টি-টোয়েন্টি ক্যাপটেন্সি কেরিয়ারের শেষ বিশ্বকাপ ট্রফি জিতে শেষ করতে। আর সেক্ষেত্রে যদি পাশে পাওয়া যায় গুরু ধোনিকে, তাহলে যে সোনায় সোহাগা তা বলাই বাহুল্য।

 

Related Articles

Back to top button