আমি নিজে ক্ষমাপ্রার্থী…, হঠাৎ কার কাছে ক্ষমা চাইলেন মুখ্যমন্ত্রী?

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ অবশেষে ক্ষমা চাইলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। গত ২৮ অগস্ট ছিল তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবস। সেই সভায় যুব সমাজকে বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি নানা বিষয়ে কথা বলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। সেখানে ঐক্য নিয়ে কথা বলতে গিয়ে নিজের শরীরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গর সঙ্গে এক-একটি জাতির তুলনা করেন মুখ্যমন্ত্রী। আর সেখানেই বিপত্তি।

নিজের বক্তৃতায় হঠাৎই রাজবংশীর (Rajbangshi People) সঙ্গে নিজের পায়ের তুলনা টানেন মমতা। মমতা বলেছিলেন, ‘আমার এক হাত যদি হয় হিন্দু, আরেকটা হাত মুসলমান। আমার একটা চোখ যদি হয় পাঞ্জাব, আরেকটা চোখ হচ্ছে খ্রিষ্টান। আমার একটা পা যদি হয় আমার রাজবংশী, আরেকটা পায়ে আমি চলি তাদের দেখে নমস্কার করি সেটা হচ্ছে মতুয়া’।

   

আর মুখ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্যকে কেন্দ্র করে জোর বিতর্ক শুরু হয়। মমতার বক্তব্যের তীব্র নিন্দা করে সাংবাদিক সম্মেলন করেন গ্রেটার কোচবিহার পিপলস অ্যাসোসিয়েশন। অ্যাসোসিয়েশনের নেতা বংশীবদন বর্মণই প্রথম মুখ্যমন্ত্রীর ক্ষমা চাওয়ার দাবি তোলেন।

আরও পড়ুন: লিপ্‌স অ্যান্ড বাউন্ডসের ওই ১৬ ফাইলে কী আছে জানেন? শনিতেই সব ফাঁস, বিপাকে ED?

mamata

বুধবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্ৰতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিকও এই নিয়ে আওয়াজ তোলেন। বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী রাজবংশী সমাজকে অসম্মানিত করেছেন। তাকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে। না হলে আমরা আন্দোলনে নামব।”

আরও পড়ুন: বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের কোন রায়টি বছরের সেরা জানেন? রিপোর্ট প্রকাশ করল হাই কোর্ট

এই নিয়ে জল গড়াতেই এ দিন মুখ্যমন্ত্রী টুইট করে বলেন, “রাজবংশী সম্প্রদায়কে আমি অপমান করেছি বলা হচ্ছে। (ভিডিয়োয়) পরের লাইনটা দেখে নিলে ঠিক হয়। আমি বলছি, তাদের পায়ে প্রণাম করি।’’মুখ্যমন্ত্রী এও বলেন, ‘‘যদি এর জন্যে কেউ দুঃখ পেয়ে থাকেন, আমি নিজে ক্ষমাপ্রার্থী। আপনাদের চরণস্পর্শে আমি প্রণাম করি।” মুখ্যমন্ত্রীর ক্ষমাপ্রার্থনার পর বংশীবদন বলেন, “মানুষ মাত্রই ভুল হতে পারে। মুখ্যমন্ত্রী ক্ষমা চাওয়ায় আমরা খুশি।”

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর