বিশালের গ্লাভস ও সাদিকুর গোলে অসাধারণ প্রত্যাবর্তন মোহনবাগানের! ISL-এ অপরাজিত সবুজ মেরুণ

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্কঃ কিছুদিন আগে এই প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে হেরেই এএফসি কাপের পরবর্তী রাউন্ডে যাওয়ার সুযোগ হাতছাড়া করেছে মোহনবাগান (Mohun Bagan)। ফলে সমর্থকরা ওড়িশা এফসির (Odisha FC) বিরুদ্ধে ম্যাচে নামার আগে নিজেদের দলকে নিয়ে যে কিছুটা চিন্তায় ছিলেন তা নিয়ে সন্দেহ নেই। ম্যাচের প্রথম দিকে সেই চিন্তা আরও বেড়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সাদিকুর (Sadiku) জোড়া গোলে ভর করে মরশুমের প্রথম লিগের হারের হাত থেকে রক্ষা পেলো মোহনবাগান।

   

এদিন ম্যাচ থেকে মোহনবাগান যে পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে পারছে তার জন্য ধন্যবাদ দিতে হবে মোহনবাগান গোলরক্ষক বিশাল কাইথকে। ম্যাচের একদম শেষ দিকে নিশ্চিত দুটি গোল বাঁচিয়ে প্রাঞ্জল ভুমিচকে স্কোরলাইন ৩-১ করা থেকে আটকান। যার জন্য ম্যাচের অন্তিম লগ্নে কিয়ান নাসিসির হেড রিসিভ করে সাদিকুর দুর্দান্ত গোলে ২-২ ফলে ড্র করতে পেরেছে মোহনবাগান।

এদিন ৩১ মিনিটর মধ্যে আহমেদ জাহু পেনাল্টি থেকে গোল করে এগিয়ে দিয়েছিলেন। শুভাশিস বোস হ্যান্ডবল করায়ে পেনাল্টি পেয়েছিল ওড়িশা। এরপর জাহু নিজেই মাঝমাঠে দুর্দান্তভাবে বল ছিনিয়ে নেন ম্যাচের প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার ঠিক আগে। সেই লুচ বল ধরে বিপজ্জনকভাবে মোহনবাগানের বক্সে ঢুকে আসেন মৌরিসিও। এরপর তার সাজিয়ে দেওয়া বল থেকেই নিজের দ্বিতীয় গোল করেন জাহু।

আরও পড়ুন: ‘আঃ, আঃ, আহহ’, ইউরোতে রোনাল্ডোদের বিপক্ষ নির্ধারণের সময় ভেসে আসলো যৌন শীৎকার! অস্বস্তিতে UEFA

এরপর দ্বিতীয় আর্থে ৫৮ মিনিটে কিয়ান নাসিরির পাস থেকেই এক গোলের ব্যবধান কমান সাদিকু। তবু একটা সময়ও হতে গিয়ে হয়তো অনেক মোহনবাগান ভক্ত এই ম্যাচ থেকে কোন পয়েন্ট পাওয়ার আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু শেষপর্যন্ত যে তারা এক পয়েন্ট ম্যাচ থেকে নিয়ে ফিরতে পারছে তার জন্য সাদিকু এবং বিশাল দুজনেরই সমান কৃতিত্ব প্রাপ্য।

আরও পড়ুন: দুরন্ত ক্লিয়েটন, নন্দা! নর্থইস্টের গলায় ৫ গোলের মালা ঝুলিয়ে মরশুমের সবচেয়ে বড় জয় পেলো ইস্টবেঙ্গল

এই ম্যাচের পর ছয় ম্যাচ খেলে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে আপাতত তিন নম্বরে রয়েছে মোহনবাগান। ওড়িশা ৮ ম্যাচ খেলে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে তাদের চেয়ে এক ধাপ পেছনেই রয়েছে। এরপর ১৫ই ডিসেম্বর খাতায়-কলমে অনেকটাই দুর্বল নর্থইস্ট ইউনাইটেডের মুখোমুখি হবে সবুজ মেরুন শিবির।