বিজেপিকে ভোট দেওয়াই হল কাল! মধ্যপ্রদেশে মুসলিম মহিলার সঙ্গে পৈশাচিক অত্যাচার, শুনে আঁতকে উঠবেন

বাংলাহান্ট ডেস্ক: সম্প্রতি মধ্যপ্রদেশে হয়ে গিয়েছে বিধানসভা নির্বাচন। সেই ভোটেই এক্কেবারে ভরাডুবি হয়েছে কংগ্রেসের। ২৩০টি আসনের মধ্যে ১৬৩টি আসনে জয় পেয়ে গেরুয়া ঘাঁটি শক্ত করেছে বিজেপি। আর সেখানেই গেরুয়া শিবিরকে ভোট দেওয়ার কারণে এক মুসলিম মহিলাকে বেধড়ক মারধর করা হয়েছে বলেই জানা গিয়েছে।

   

অভিযোগের তীর অবশ্য উঠেছে ওই মুসলিম মহিলার দেওরের বিরুদ্ধেই। মধ্যপ্রদেশের সিহোর জেলার আহমেদপুর এলাকায় উঠে যাবে এই ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে সারা দেশে। শনিবার এই ঘটনার কথা প্রকাশ্যে এসেছে। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে ঠিক কী ঘটেছিল?

আরোও পড়ুন : কাঁপাচ্ছে নেটপাড়া! কামাল করছে ববি দেওলের জামাল কাদু, অ্যানিমালের এই হিট গানের মানে জানেন?

গত সোমবার বিজেপির জয় উদযাপনে শামিল ছিলেন সামিনা নামের ওই মুসলিম মহিলা। অভিযোগ, সামিনাকে আনন্দ করতে দেখে রণমূর্তি ধারণ করে তাঁর দেওর জাভেদ খান। কুকথার প্রতিবাদ করায় সামিনাকে লাঠি দিয়ে মারধর করা হয়। মারধরে জখম হয়েছেন তিনি। বিজেপিকে আগামী দিনে সমর্থন জানালে পরিণতি ভয়ঙ্কর হবে বলেও হুমকি দেওয়া হয়।

আরোও পড়ুন : ছুটির দিন শেষ! এবার করতে হবে টানা কাজ, ডিসেম্বর নিয়ে সরকারি কর্মীদের মাথায় বাজ

পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন নিগৃহীতা।ভারতীয় দণ্ডবিধির ২৯৪, ৩২৩, ৫০৬, ৩৪ ধারায় মামলা রুজু করেছে সেহোর পুলিশ। এক পুলিশ আধিকারিক বলেছেন, ‘এক মহিলাকে মারধর করেছেন তাঁর আত্মীয়। আমরা এই অভিযোগ পেয়েছি। ভারতীয় দন্ডবিধির বিভিন্ন ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। দ্রুত অভিযুক্তকে পাকড়াও করা হবে।’ 

সূত্রের খবর, আক্রান্ত মহিলার সঙ্গে দেখা করেছেন মধ্যপ্রদেশের বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিংহ চৌহ্বান। সাক্ষাতের ছবি এক্স হ্যান্ডলে পোস্ট করেছেন তিনি। পাশাপাশি, দোষীর বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। ওই মহিলাকে আর্থিক সাহায্য দেওয়ার পাশাপাশি তাঁর নিরাপত্তাও সুনিশ্চিত করেছেন।