যুদ্ধ বিমানের নামে ‘জঞ্জাল” বিক্রি করেছে কাঙাল পাকিস্তান! বিকল জেট পেয়ে চটে লাল মায়ানমার

   

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ দেউলিয়া হওয়ার দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে থাকা পাকিস্তান (Pakistan) মায়ানমারকে (Myanmar) যেই ফাইটার প্লেনগুলি সরবরাহ করেছিল, তা জঞ্জালে পরিণত হয়েছে। যুদ্ধবিমান জেএফ-১৭ থান্ডারে বড়সড় ত্রুটি ধরার পর ক্ষোভ প্রকাশ করেছে মায়ানমারের সামরিক শাসন। কড়া বার্তা পাঠিয়ে পাকিস্তানের কাছে জবাবও চেয়েছে তাঁরা। ২০১৬ সালে দুই দেশের মধ্যে এই ফাইটার জেট নিয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল। চীনের চেংডু এয়ারক্রাফ্ট ইন্ডাস্ট্রিজের সহযোগিতায় পাকিস্তান অ্যারোনটিক্স কমপ্লেক্স এই বিমানগুলি তৈরি করেছিল। কিন্তু এখন এসব ফাইটার প্লেন ওড়ার মতো অবস্থায় নেই।

মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, মায়ানমারের সামরিক ক্ষমতায় থাকা জুনটা নেতা জেনারেল অং মিগ হ্লাইং JF-17 যুদ্ধবিমান জঞ্জালের মতো পরিস্থিতি হওয়া নিয়ে তীব্র আপত্তি জানিয়েছেন। এছাড়াও পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরীফ ও সেনাপ্রধান অসীম মুনিরের কাছেও কড়া বার্তা পাঠানো হয়েছে।

পাকিস্তান ২০১৯  থেকে ২০২১ সালের মধ্যে মায়ানমারের কাছে ১১টি JF-17 যুদ্ধবিমান বিক্রি করেছিল। কিন্তু এখন সেই বিমানগুলিকে অযোগ্য ঘোষণা করা হয়েছে। প্রযুক্তিগত ত্রুটির কারণে সেগুলো আর উড়তে পারছে না। তাই মায়ানমার এখন প্রতারিত বোধ করছে। এসব বিমান কেনার জন্য ২০১৬ সালে পাকিস্তানের সঙ্গে চুক্তি করেছিল মায়ানমার। সেই চুক্তির অধীনেই পাকিস্তান তাকে এই বিমানগুলো দিয়েছিল। কিন্তু বিমানগুলো সরবরাহের পরই প্রযুক্তিগত ও কাঠামোগত ত্রুটি ধরা পড়ে।

এরপর মায়ানমার এসব বিমান ওড়ানো বন্ধ করে দেয়। এরপর পাকিস্তানও তাদের দল পাঠায় এই ফাইটার প্লেনগুলি মেরামতের জন্য। কিন্তু তাতেও সুরাহা হয়নি। এখন এই বিমানগুলি ওড়ানোর মতো অবস্থায় নেই। তাদের দাঁড় করিয়ে রাখতে বাধ্য হচ্ছে মায়ানমার। মায়ানমারকে দেওয়া JF-17 জঞ্জালে পরিণত হওয়ার পর এখন পাকিস্তানের কাছ থেকে কোনো দেশই বিমান কিনতে প্রস্তুত নয়।

Avatar
Koushik Dutta

সম্পর্কিত খবর