fbpx
টাইমলাইনভারত

প্লাস্টিক মুক্ত ভারত গড়তে নয়া সিদ্ধান্ত মোদি সরকারের! এবার থেকে মাটির ভাঁড়ে চা পাওয়া যাবে রেল স্টেশন, এয়ারপোর্ট ও মলে

ভারতীয় শাস্ত্রে মাটি ও মাটির তৈরি পাত্রকে পবিত্র বলা হয়। কিন্তু আধুনিকতার নামে অনেকে শাস্ত্রকে পিছিয়ে পড়া মনে করে। তবে এখন আধুনিক বিজ্ঞানও শাস্ত্রের কাছে মাথানত করছে। যে হারে দূষণ বাড়ছে তাতে আবার সমাজকে ভারতীয় শাস্ত্রের দিকে মুখ ফেরাতে হচ্ছে। শীঘ্রই প্রধান রেল স্টেশন, বাস ডিপো, বিমানবন্দর এবং মলগুলিতে আপনার প্রিয় চা পরিবেশবান্ধব মাটির পাত্রে পরিবেশিত হতে পারে। এক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় পরিবহণ ও MSME  মন্ত্রী নিতিন গড়করি রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলকে একটি চিঠি লিখেছেন। বর্তমানে, মাটির তৈরি ভাঁড়, কাঁচ এবং প্লেটগুলি কেবল বারাণসী এবং রায়বরেলি রেলস্টেশনে ব্যাবহার করা হচ্ছে।

নিতিন গড়করি সম্প্রতি জানিয়েছিলেন যে তিনি রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলকে একটি চিঠি লিখেছেন। এই চিঠিতে গড়করি রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলকে কমপক্ষে ১০০ টি রেল স্টেশনে মাটির পাত্রের ব্যাবহার  করতে বলেছেন। এছাড়াও বিমানবন্দর, রাজ্য পরিবহন কর্পোরেশনের অনুমোদিত বাস ঘাঁটিতে অবস্থিত চায়ের দোকানে মাটির তৈরি ভাঁড় ব্যবহার বাধ্যতামূলক করতে হবে। গডকরি বলেছেন যে আমরা মলগুলিতে অবস্থিত চায়ের দোকানে চালকদের মাটির তৈরি ভাঁড় ব্যবহার করতেও উত্সাহিত করব।

কেন্দ্রীয় পরিবহণমন্ত্রী বলছেন যে এই পদক্ষেপ স্থানীয় কুমোরদের একটি বড় বাজার সরবরাহ করা যাবে। একই সাথে মাটির পাত্রের ব্যবহারের প্রচারের মাধ্যমে পরিবেশকে পরিষ্কার রাখতে সহায়তা করবে। এটি কাগজ এবং প্লাস্টিকের পানীয় সরবরাহও রোধ করবে। গডকরি বলেছিলেন যে মাটির তৈরি ভাঁড় এর চাহিদা বৃদ্ধি পেলে তিনি খাদি এবং গ্রামীণ শিল্প কমিশনকে (কেআইভিসি) ব্যাপক উত্পাদনের জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম সরবরাহ করতে বলেছিলেন।

কেআইসির চেয়ারম্যান বিনয় কুমার স্যাক্সেনা পিটিআইকে বলেছেন, গত বছর আমরা কুলাহাদ তৈরির জন্য কুমোরদের ১০,০০০ চক (মৃৎশিল্প তৈরিতে ব্যবহৃত চাকা) বিতরণ করেছি। এই বছর আমরা 25 হাজার বৈদ্যুতিক চক বিতরণের লক্ষ্য রেখেছি। কুমোর ক্ষমতায়ন প্রকল্পের আওতায় উৎপাদন বাড়াতে সরকার বৈদ্যুতিক চক বিতরণ করছে।

Leave a Reply

Close
Close