শিক্ষকদে বাগে আনতে নয়া নিয়ম! ৪ শতাংশ DA দিয়েই কড়া অ্যাকশন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের

বাংলাহান্ট ডেস্ক : শিক্ষাই হল একটি জাতির মেরুদন্ড। প্রকৃত শিক্ষা ছাড়া কখনোই একটি জাতি গঠিত হতে পারে না। আর এই শিক্ষাদান যারা করে থাকেন তাদের আমরা শিক্ষক শিক্ষিকা হিসাবে মেনে থাকি। আমাদের মধ্যে অনেকেরই স্বপ্ন থাকে বড় হয়ে শিক্ষক শিক্ষিকা হওয়ার। শিক্ষকতা শুধুমাত্র অর্থ উপার্জনের একটি মাধ্যম নয়, শিক্ষক মানে গুরু।

   

কিন্তু বিগত কয়েক বছরে একাধিক শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষায় দুর্নীতির ফলে বহু চাকরিপ্রার্থী হতাশ। এক বছরেরও বেশি সময় ধরে বহু চাকরিপ্রার্থী আন্দোলন চালাচ্ছেন স্বচ্ছ ভাবে শিক্ষক-শিক্ষিকা পদে নিয়োগের দাবিতে। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় হারে মহার্ঘ ভাতার দাবিতে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের একাংশ বিক্ষোভ চালাচ্ছে।

আরোও পড়ুন : বড়দিনের ছুটিতে দিঘা ঘোরার প্ল্যান থাকলে সাবধান! এই খবর না জানলেই বিপদ, বদলে যাচ্ছে আবহাওয়া

সম্প্রতি রাজ্য সরকার কর্মচারীদের ৪ শতাংশ মহার্ঘ ভাতার ঘোষণা করেছে। যদিও রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা রাজ্যের এই সিদ্ধান্তে খুশি নয়। কর্মচারীদের দাবি কেন্দ্রীয় হারে বকেয়া মহার্ঘ ভাতা তাদের মেটাতে হবে। কর্মচারীদের এই আন্দোলনে বহু শিক্ষক-শিক্ষিকাও অংশ নিয়েছেন। এই আবহে রাজ্যের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের জন্য উঠে আসছে একটি বড় খবর।

আরোও পড়ুন : ‘বাড়িতে পরিষেবা’, নয়া উদ্যোগ পশ্চিমবঙ্গ সরকারের! এবার একবারে ঘরেই পৌঁছবে কলকাতা পুরসভা

আপনি যদি রাজ্যের কোনও সরকারি স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকা হয়ে থাকেন তাহলে এই প্রতিবেদনটি মন দিয়ে পড়ুন। মধ্যশিক্ষা পর্ষদ নতুন নির্দেশ জারি করেছে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের জন্য। এই নির্দেশ যদি কেউ অমান্য করেন তাহলে তাকে পড়তে হতে পারে করা শাস্তির মুখে। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের নতুন নির্দেশিকা অনুযায়ী শিক্ষক-শিক্ষিকাদের স্কুল শুরু হওয়ার অন্তত ১০ মিনিট আগে ঢুকতে হবে স্কুলে।

এই নিয়ম অমান্য করলে শিক্ষক শিক্ষিকাদের নামের পাশে পড়বে লাল কালির দাগ। ১০:৫০ মিনিটে আগে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের ঢুকতে হত স্কুলে। এবার থেকে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সকাল ১০ঃ৪০ মিনিটের মধ্যে ঢুকে যেতে হবে স্কুলে। এই সময়ের পর যদি কোনও শিক্ষক-শিক্ষিকা স্কুলে ঢোকেন তাহলে তার নামের পাশে পড়বে লাল কালির দাগ।

The state appointed 4,100 teachers

এমনকি ১১:১৫ মিনিটের পর স্কুলে ঢুকলে সেদিন ছুটি হিসাবে গণ্য করা হবে ওই শিক্ষক শিক্ষিকার। নতুন নিয়ম অনুযায়ী বেলা সাড়ে চারটা পর্যন্ত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের স্কুলে থাকতেই হবে। আগে থেকে না জানিয়ে নেওয়া যাবে না ছুটি। এছাড়াও ক্লাস চলাকালীন ব্যবহার করা যাবে না স্মার্টফোন। সেক্ষেত্রে স্মার্টফোন ব্যবহার করার জন্য আগে থেকে নিতে হবে অনুমতি।