সরাতে হবে জবরদখল, নয়া সড়ক গড়তে উদ্যোগী পশ্চিমবঙ্গ সরকার! জারি হল কড়া নির্দেশিকা

বাংলাহান্ট ডেস্ক : রাজ্য সরকারের উচ্চ পর্যায়ের পক্ষ থেকে সড়ক পরিকাঠামোর ক্ষেত্রে জমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত সমস্যা দূর করার নির্দেশ দেওয়া হয়। এবার নবান্নের পক্ষ থেকে সড়ক পরিকাঠামোর জন্য জবরদখল সমস্যা দূর করে বাধাহীনভাবে কাজ করার নির্দেশ দেওয়া হল। রাজ্য প্রশাসন সূত্রে খবর, আগামী দিনে একাধিক সড়ক পরিকাঠামো পেতে চলেছে রাজ্য।

   

তবে কেন্দ্রের তরফ থেকেই এর যাবতীয় নির্মাণ খরচ বহন করা হবে। রাজ্যের বর্তমান আর্থিক অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি দিক। তাই ভবিষ্যতের কথা ভেবে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জমি অধিগ্রহণ ও জবরদখল সরানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বারাণসী-কলকাতা এক্সপ্রেসওয়ের সঙ্গে খড়্গপুর-মোড়গ্রাম, রক্সৌল-হলদিয়া এবং গোরক্ষপুর-শিলিগুড়ির মতো আর্থিক করিডর তথা এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ হবে অদূর ভবিষ্যতে।

আরোও পড়ুন: বাংলার আকাশে কালো মেঘ, বৃষ্টির সম্ভাবনা উত্তরে! কেমন থাকবে দক্ষিণবঙ্গ? IMD আপডেট

ছাড়পত্র প্রদান :

জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের (এনএইচএআই) পক্ষ থেকে ইতিমধ্যেই ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে দ্বিতীয় হুগলি সেতু থেকে কোনা এক্সপ্রেসওয়ের উপর দিয়ে যাওয়া ‘এলিভেটেড করিডর’ (উড়ালপথ) প্রকল্পকেও। নবান্নের পক্ষ থেকে জমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত ছাড়পত্র দেওয়া হলেও, বিভিন্ন ক্ষেত্রে সমস্যা হয়ে দাঁড়াচ্ছে জবরদখল।

আরোও পড়ুন : অমিত শাহের সভার আগেই বেফাঁস বিজেপি নেতা! মন্তব্য ঘিরে তুঙ্গে চর্চা, তাহলে কী পালাবদল?

বিশেষজ্ঞদের মতামত: 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রকল্পগুলির নকশা অনুযায়ী জমি থেকে জবরদখল সরাতে না পারলে পরিকাঠামো গড়া অসম্ভব। নবান্নর পক্ষ থেকে জেলা শাসকদের বার্তা দেওয়া হয়েছে, যত দ্রুত সম্ভব সরাতে হবে জবরদখল। এমনকি একটি সূত্রের দাবি, জবরদখলকারীরা যদি আইনি পদক্ষেপের হুঁশিয়ারি দেয় , তাহলেও নিজেদের অবস্থানে অটুট থাকার বার্তা দেওয়া হয়েছে।

gt road(1)

প্রশাসনিক কর্তার বক্তব্য: 

এক প্রশাসনিক কর্তার কথায়, রাজ্যে অদূর ভবিষ্যতে হতে চলেছে প্রায় ৫০ হাজার কোটি টাকার সড়ক প্রকল্প। এই প্রকল্পগুলি বাস্তবায়িত হলে পরিকাঠামো যেমন উন্নত হবে, বিনিয়োগ-কর্মসংস্থান জাতীয় সমস্যার সমাধান হবে অনেকটা। এই প্রকল্পগুলি আর্থিকভাবে কেন্দ্রের উপর নির্ভরশীল। ফলে চাপ পড়বে না রাজ্যের কোষাগারে। তাই রাজ্য চাইছে দ্রুত জমি সংক্রান্ত সমস্যা মিটিয়ে ফেলতে।