মিরপুরে টার্নিং পিচে নিউজিল্যান্ডকে রুখতে ব্যর্থ বাংলাদেশ! ফিলিপ্সের দাপটে সিরিজ ড্র করলো কিউয়িরা

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্কঃ চূড়ান্ত ঘূর্ণি উইকেট বুমেরাং হয়ে গেলো। সিলেটে কিছুটা স্পোর্টিং উইকেট শেষদিকে উপমহাদেশের উইকেটের চরিত্র অনুযায়ী ব্যবহার বজায় রাখায় বাংলাদেশ (Bangladesh Cricket Team) টসে জেতায় সেই ম্যাচে উইলিয়ামসনের শতরান সত্ত্বেও স্পিনারদের দাপটে ১৫০ রানে জয় পেয়ে ২ ম্যাচের সিরিজে লিড নিয়েছিলেন শান্তরা। কিন্তু সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে সেই নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধেই (Bangladesh vs New Zealand) টার্নিং উইকেট সুবিধার বদলে অসুবিধার কারণ হয়ে দাঁড়ালো। মিরপুরে ম্যাচের প্রথম দিন থেকে স্পিনারদের দাপট বজায় ছিল।

   

নিউজিল্যান্ডের স্পিনারদের দাপটে প্রথম দিন ১৭২ রান তুলে অলআউট হয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। দ্বিতীয় দিন বৃষ্টির কারণে খেলা পুরোপুরি বন্ধ থাকে। ম্যাচের তৃতীয় দিনে নিউজিল্যান্ড যখন অলআউট হয় তখন তাদের নামের পাশে রয়েছে ৮ রানের লিড। বাংলাদেশ নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে শোচনীয়ভাবে ব্যর্থ হয় এবং মাত্র ১৪৪ রান তুলে অলআউট হয়ে যায়।

জয়ের জন্য কিউয়িদের সামনে লক্ষ্য ছিল ১৩৭ রান। এই রান দাঁড়া করতে নেমে মাত্র ৫১ রানের মধ্যে ৫ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে গিয়েছিল নিউজিল্যান্ড। কিন্তু মিচেল স‍্যান্টনারকে সঙ্গে নিয়ে ৭০ রানের একটি অসাধারণ পার্টনারশিপ গড়ে নিউজিল্যান্ডকে সমতায় ফেরান গ্লেন ফিলিপ্স (Glenn Phillips)।

sant glenn

আরও পড়ুন: রোহিত, কোহলির থেকেও কেন বিরল প্রতিভা হার্দিক? চমকে দেওয়া মন্তব্য প্রাক্তন ভারতীয় তারকার

প্রথম ইনিংসে তিনি তিন উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের ব্যাটিংকে ভেঙে ছিলেন। তৃতীয় ইনিংসে তার বোলিং করার প্রয়োজন পড়েনি। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতে ৮৭ রানের একটি আক্রমণাত্মক ইনিংস খেলে দলকে আট রানের লিড এনে দিতে সাহায্য করেছিলেন তিনি। আর শেষপর্যন্ত অপরাজিত ৪০ রানের একটি ইনিংস খেলে এই ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার হয়ে যান কিউয়ি অলরাউন্ডার গ্লেন ফিলিপ্স।

আরও পড়ুন: ৩০ দিনের মধ্যে কোহলিকে শতরানের রেকর্ড ভাঙবে শান্ত! আত্মবিশ্বাস ভরা গলায় হুঙ্কার বাংলাদেশ ভক্তদের

সিরিজের প্রথম ম্যাচটি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের (World Test Championship) পয়েন্টস টেবিলে ভারতকে টপকে দ্বিতীয় স্থানে উঠে গিয়েছিল বাংলাদেশ। দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচটি জিততে পারলে তারা পাকিস্তানকে ছুঁয়ে ফেলত। কিন্তু এই ব্যাচটা হেরে পয়েন্টস টেবিলে আবার ভারতের চেয়ে পিছিয়ে পড়বে তারা। কারণ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে ভারত একটি টেস্ট ম্যাচ জিতেছিল এবং অপর ম্যাচটি ড্র করেছিল।