ধোপে টিকলো না মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ! কারও বাতিল হয়নি আধার, সমস্যা হলে কি করণীয় জানাল কর্তৃপক্ষ

বাংলা হান্ট ডেস্ক: বর্তমান সময়ে দেশের (India) প্রত্যেক বাসিন্দার কাছে আধার কার্ড (Aadhar Card) একটি গুরুত্বপূর্ণ নথি হিসেবে বিবেচিত হয়। কিন্তু এবার এই কার্ডের প্রসঙ্গেই রীতিমতো বিতর্কের উদ্রেক ঘটেছে। যার ফলে তৈরি হয়েছে বিভ্রান্তির আবহ। উল্লেখ্য যে, গত রবিবার সিউড়িতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) আধারের প্রসঙ্গে গুরুতর অভিযোগ তোলেন। তিনি দাবি করেন যে, ভোটের রাজনীতির কারণে কেন্দ্রীয় সরকার আধার নম্বর নিষ্ক্রিয় করে দিচ্ছে। এদিকে, মুখ্যমন্ত্রীর এহেন দাবির পরিপ্রেক্ষিতে শুরু হয়েছিল রাজনৈতিক তরজাও। তবে, এবার সামগ্রিক বিষয়টি স্পষ্ট করল আধার কর্তৃপক্ষ।

   

সোমবার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তরফে জানিয়ে দেওয়া হল যে, দেশের নাগরিকদের কারও আধার বাতিল করা হয়নি। মূলত, বিভ্রান্তি দূর করতেই কর্তৃপক্ষ এই তথ্য জানিয়েছে। পাশাপাশি, বিষয়টির প্রসঙ্গে সোমবার দুপুরে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী জানিয়েছেন যে, তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে কথা বলেছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সহ তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণবের সঙ্গেও তিনি এই বিষয়ে কথা বলেন। এমতাবস্থায়, তাঁরা জানিয়েছেন যে, কেন্দ্রের তরফে আধার বাতিলের কোনো নির্দেশ প্রদান করা হয়নি। এদিকে, রাজ্যের বিরোধী দলনেতা এদিন নতুন করে দাবি করেন যে, কারও আধার নিষ্ক্রিয় হয়নি। বরং, মমতা ভোটের ফায়দা তুলতেই ইচ্ছাকৃতভাবে এহেন প্রচার চালাচ্ছেন।

No one's Aadhaar has been cancelled, the authorities said

তবে, প্রযুক্তিগত ত্রুটির কারণে আধার বাতিলের চিঠি গিয়ে থাকতে পারে বলেও জানা গিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে, আধার কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে যে, কখনও কখনও দেখা যায়, নতুন তথ্য অন্তর্ভুক্তির জন্য কিছু প্রযুক্তিগত সমস্যা দেখা দেয়। সেই সময়ে https://uidai.gov.in/en/contact-support/feedback.html-এই লিঙ্কে প্রয়োজনীয় তথ্য আপলোড করে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করা যাবে।

আরও পড়ুন: বড় পরিবর্তন KKR-এ! IPL-এর আগেই ছিটকে গেলেন এই প্লেয়ার, দলে “এন্ট্রি” হল বিধ্বংসী বোলারের

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, গত রবিবার সিউড়িতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ তোলেন, কেন্দ্রীয় সরকার আধার নম্বর নিষ্ক্রিয় করে দিচ্ছে। শুধু তাই নয়, বীরভূম, দুই ২৪ পরগনা, বর্ধমান, সহ উত্তরবঙ্গেও এরকমের বহু ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী। এমতাবস্থায়, এই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্য বিজেপি অতি দ্রুত ড্যামেজ কন্ট্রোলে নামে। এদিকে, তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ দাবি করেন যে, শুভেন্দু অধিকারী ও সুকান্ত মজুমদার আধার নিষ্ক্রিয় করার বিষয়টি রীতিমতো মেনে নিয়েছেন।

আরও পড়ুন: কাঙাল পাকিস্তানের অর্থব্যবস্থার থেকেও বড় হয়ে গেল টাটা গ্রুপ! পরিসংখ্যান দেখে ঘুম উড়েছে পড়শির

পাশাপাশি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্ন থেকে সাংবাদিক বৈঠক করে সরাসরি প্রশ্ন তোলেন যে, লোকসভা ভোটের আগে হঠাৎ এত মানুষের আধার কার্ড কেন বাতিল করা হচ্ছে? তিনি জানান, কেন্দ্রীয় সরকার গায়ের জোরে এই কাজ করছে। এছাড়াও, মমতা জানান যে, এর ফলে মতুয়ারা সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। তিনি বলেন, ভোটের আগে এই কাজ করছে কেন্দ্র। পশ্চিমবঙ্গের প্রত্যেক জেলায় এমন ঘটনা ঘটার পাশাপাশি মতুয়াদের সবচেয়ে বেশি আধার কার্ড বাতিল করা হয়েছে। এমনকি, তফসিলি এবং সংখ্যালঘুদের ওপরেও অত্যাচার চলছে। তিনি বলেন, কেন্দ্র অসমের মতো ডিটেনশন ক্যাম্প তৈরির ভাবনা নিয়েছে। কিন্তু, তিনি এনআরসি-র বিপক্ষে গিয়ে স্পষ্ট জানান যে, ”এখানে কোনো ডিটেনশন ক্যাম্প হবে না। এটা অসম, উত্তরপ্রদেশ কিংবা বিহার নয়। এটা হল বাংলা।”

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর